টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

‘নৌ এবং বিমান বাহিনীরও বিশেষ ব্যাংক হবে’

চট্টগ্রাম, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৬ (সিটিজি টাইমস):  সেনাবহিনীর ট্রাস্ট ব্যাংক, বিজিবির সীমান্ত ব্যাংকের পর এবার নৌ এবং বিমান বাহিনীর যৌথ সমন্বয়ে বিশেষ ব্যাংক করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর পিলখানায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদর দপ্তরে সীমান্ত ব্যাংকের অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে তিনি এই কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সীমান্ত ব্যাংকের জন্য ২০১৪ সালে প্রস্তাব করা হয়। এখন সেই সীমান্ত ব্যাংক চালু হলো। নৌ এবং বিমানবাহিনীও ব্যাংকের আবেদন করেছে। আমি তাদের দুই বাহিনীর সমন্বয়ে একটি ব্যাংক গঠন করার কথা বলেছি।

তিনি বলেন, সীমান্ত ব্যাংক দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নসহ কৃষি এবং ক্ষুদ্র ঋণ প্রকল্পে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। সীমান্তের বাসিন্দাদের জন্য এই ব্যাংক লেনদেন সহজ করবে। এছাড়াও এই ব্যাংকের লভ্যাংশ বিজিবির ক্ষতিগ্রস্থ সদস্যদের পরিবারের জন্য ব্যবহার করা হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, সীমান্ত ব্যাংকে চাকরির জন্যে বিজিবি সদস্যদের ছেলে-মেয়েকে অগ্রাধীকার দেওয়া হবে। ফলে তাদের চাকরি সমস্যা দূর হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সীমান্ত চুক্তির মাধ্যমে বিজিবি সীমান্তে কঠোর ভূামকা পালন করছে। বিজিবি গোয়েন্দারে উন্নয়নের মাধ্যমে আমরা বর্ডার সিকিউরিটিজ ব্যুারোকে শক্তিশালী করেছি।

তিনি বলেন, প্রবৃদ্ধি অর্জনে বিশ্বের ৫টি সেরা দেশের মধ্যে বাংলাদেশ রয়েছে। বর্তমান সরকারের নানা পদক্ষেপের মাধ্যমে যা সম্ভব হয়েছে।

শেখ মুজিবের পর আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনও সরকার ভারত-মায়ানমারের সাথে সীমান্ত চুক্তি করেনি উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, পৃথিবীর একমাত্র দেশ যারা শান্তিপূর্ণভাবে সিটমহল এবং জনসংখ্যা বিনিময় করেছে। সেক্ষেত্রে বিজিবির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল বলে মনে করেন তিনি।

মতামত