টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কর্ণফুলীর ১৬ ঘাট পাঁচ দিন পর সরগরম

চট্টগ্রাম, ২৮  আগস্ট ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::  কর্ণফুলী নদীর ১৬ ঘাটে লাইটার (ছোট) জাহাজ থেকে পণ্য খালাস শুরু হয়েছে।

নৌযান ধর্মঘটের কারণে পাঁচ দিন বন্ধ থাকার পর রোববার (২৮ আগস্ট) সকাল থেকে শ্রমিক ও মাঝিমাল্লাদের হাঁকডাকে ক্রমে সরগরম হয়ে ওঠে ঘাটগুলো।

শনিবার বিকেল চারটায় শ্রমমন্ত্রীর সঙ্গে শ্রমিকনেতাদের বৈঠক শুরু হয়েছিল। এরপর রাত ১২টায় সর্বনিম্ন মজুরি ৯ হাজার ৬০০ টাকা নির্ধারণ হলে শ্রমিকরা তা মেনে নেয়। এরপরই নৌযান শ্রমিকরা কাজে যোগ দেন জানিয়ে বাংলাদেশ লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নবী আলম বলেন, সদরঘাট থেকে বাংলাবাজার পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীর পাড়ে ১৬টি ঘাট আছে। চানবালি, একে খান, বাংলাবাজার, আসাম বেঙ্গল, গ্যাস রেলি, জুট রেলি, আনু মাঝির, এভারগ্রিন, মাঝিরঘাট, আদম ঘাট, কর্ণফুলী ঘাট ও সদরঘাটে ধর্মঘট শুরুর আগে নোঙর করা লাইটার জাহাজগুলোতে শ্রমিকরা কাজ শুরু করেছেন।

সকাল থেকে কোনো কোনো জাহাজ থেকে পণ্য খালাস হচ্ছে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে সাধারণ পণ্যের(জেনারেল কার্গো) ১৮টি, খাদ্যশস্যের ৩টি, সারের ৭টি, সিমেন্ট ক্লিংকারের ২৪টি, চিনির ৩টি, লবণের দুটি জাহাজ অপেক্ষমাণ ছিল। ধর্মঘটের কারণে এসব জাহাজে পণ্য খালাসের কাজ বন্ধ ছিল। এ ছাড়া ৯টি কনটেইনার জাহাজ ছিল বহির্নোঙরে।

মতামত