টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

জঙ্গিদের বারবার আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে

চট্টগ্রাম, ২৭  আগস্ট ২০১৬ (সিটিজি টাইমস)::নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় বড় কবরস্থান এলাকায় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অভিযানে নিহত জঙ্গিদের বারবার আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, ভোরে সোয়াট টিম আসার পর অভিযান শুরু হওয়ার আগে তাদের (জঙ্গি) বার বার আত্মসমর্পণ করতে বলা হচ্ছিল। তা না করে সারা রাতই পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড ও গুলি ছোড়ে তারা। আক্রান্ত হয়েও আমাদের বাহিনীগুলো ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে। পরবর্তীতে সকালে ফায়ার ওপেন করেছে।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

পাইকপাড়ায় বড় কবরস্থান এলাকার নুরুদ্দিনের বাড়ির তৃতীয় তলায় জঙ্গিরা অবস্থান করছেন এমন খবর পয়ে শনিবার ভোরে ভবনটি ঘিরে ফেলে পুলিশ। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সেখানে অভিযান শুরু করে পুলিশ। অভিযানের নাম দেওয়া হয় ‘অপারেশন হিট স্টং ২৭’। অভিযান শুরুর পর ১০টার দিকে সেখানে ব্যাপক গোলাগুলি শুরু হয়।

এরপর পৌনে ১১টার দিকে থেকেই খবর আসতে থাকে অভিযান কয়েকজন নিহত হয়েছেন। তবে বিষয়টি নিয়েন কেউ নিশ্চিত করে কিছু জানাচ্ছিলেন না।

পরে পুলিশ নিশ্চিত করে এতে তিনজন নিহত হয়েছেন যাদের একজন গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড তামিম চৌধুরী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জঙ্গিদের জনগণ কখনো সমর্থন করেনি আর করবেও না। জনগণ সোচ্চার হওয়ার কারণে তারা কিছুই করতে পারছে না। সাম্প্রতিক সকল জঙ্গি হামলার হোতা তামিম চৌধুরী মারা যাওয়ার পর তামিম চৌধুরীর চ্যাপ্টার এখানেই শেষ।

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের গোয়েন্দাদের কাছে খবর ছিল, তামিম চৌধুরী এ বাড়িটিতে আত্মগোপন করে আছেন। আমাদের গোয়েন্দাবাহিনী তৎপর, খোঁজ না নিয়ে এবং নিশ্চিত না হয়ে আমরা এগোই না। গোপন ওই সংবাদের ভিত্তিতে নিশ্চিত হয়ে রাত ৩টার দিকে বাড়িটি ঘেরাও করে রাখে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।’

জঙ্গিদের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এরা সংখ্যায় অল্প, জনবিচ্ছিন্ন। জনগণ এদের সমর্থন দেয় না। আমাদের গোয়েন্দারা কাজ করছেন। বাকি অল্প সংখ্যক যারা আছে, তাদেরও আমরা ধরে ফেলবো।’

তামিম ছাড়া নিহত বাকি দু’জনের পরিচয় তদন্তের মাধ্যমে জানা যাবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে খবর আছে, তারা তামিমের গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত