টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

জলদানব ফেলপসের সামনে কেউ নেই!

philipচট্টগ্রাম, ১২  আগস্ট (সিটিজি টাইমস):সবার আগে দেয়াল ছুঁয়ে হাতের চার আঙুল দেখালেন মাইকেল ফেলপস। অলিম্পিক সাঁতারে পদক জয়ের প্রায় সব রেকর্ড করে ফেলা মাইকেল ফেলপস গড়লেন অবিশ্বাস্য আরেকটি রেকর্ড। ২০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে এ নিয়ে টানা চার আসরে চ্যাম্পিয়ন হলেন তিনি। পেয়ে গেলেন অলিম্পিকের ২২তম স্বর্ণপদক!

আর কোনো সাঁতারু ব্যক্তিগত ইভেন্টে চারটি সোনা জিততে পারেনি।

রিও অলিম্পিকে নিজের প্রথম সোনাটি ফেলপস পেয়েছিলেন গেমসের দ্বিতীয় দিনে সতীর্থদের সঙ্গে ৪×১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলেতে। এতে প্রথম সাঁতারু হিসেবে অলিম্পিকের চারটি আসরে সোনা জেতা হয়ে যায় তার।

চতুর্থ দিন ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ের সোনার পদকটা গলায় ঝুলিয়েই আবার সুইমিংপুলে নেমে জেতেন ৪×২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলের সোনা। টানা চার অলিম্পিকে এই ইভেন্টে সোনাজয়ী যুক্তরাষ্ট্র দলের সদস্য হিসেবে থেকে আরেকটি রেকর্ড গড়েন ফেলপস ও তার সতীর্থ রায়ান লোকটি। আর কোনো সাঁতারু অলিম্পিকে এক ইভেন্টে চারটি সোনা জেতেননি।

তবে ওই রেকর্ডটি ছিল দলীয়। এবার ষষ্ঠ দিন ২০০ ব্যক্তিগত মিডলেতে সেরা হয়ে ব্যক্তিগত কোনো ইভেন্টে চারটি সোনা জেতা প্রথম সাঁতারু হলেন ফেলপস।

অবসর ভেঙে পঞ্চম অলিম্পিকে এসেছেন এই জলদানব। ক্যারিয়ারের শেষপ্রান্তে এসে ৩১ বছর বয়সী ফেলপসের ঝুলিতে এখন অলিম্পিকের ২২টি সোনা, ২টি রুপা ও ২টি ব্রোঞ্জ নিয়ে মোট ২৬টি পদক!

সব পদক মেলালে ১৮টি পদক নিয়ে ফেলপসের পরে আছেন সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের জিমন্যাস্ট লারিসা লাতিনিনা। আর সোনার পদকের হিসেবে তো তার ধারেকাছেই কেউ নেই। ৯টি করে সোনা লাতিনিনা, ফিনল্যান্ডের দূরপাল্লার দৌড়বিদ পাভো নুরমি, যুক্তরাষ্ট্রের সাঁতারু মার্ক স্পিৎস ও স্প্রিন্টার কার্ল লুইসের।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত