টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কক্সবাজারে পরীমনিকে অপহরণ চেষ্টার অভিযোগ! আটক তিন

porimoni-binodanচট্টগ্রাম, ০৫  আগস্ট (সিটিজি টাইমস):: কক্সবাজারের রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়িতে শুটিং চলাকালে নায়িকা পরীমনিকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে। এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিন দুর্বৃত্তকে আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে মিঠাছড়ি অ্যামিউজমেন্ট ক্লাবের শুটিং স্পটে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। সে সময় জাজ মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে ‘রক্ত’ ছবির শুটিং চলছিল।

ঘটনার সময় বখাটেদের হামলায় শুটিং ইউনিটের এক নারী সদস্যসহ তিনজন আহত হলেও পরীমনি অক্ষত রয়েছেন। এ ঘটনায় আটককৃতরা হলেন, আবদুল হামিদ (২৫), আরাফাত (২৭) ও সেলিম (২৬)।

জাজ মাল্টিমিডিয়ার প্রোডাকশন ম্যানেজার মোহাম্মদ উজ্জল জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে রামুর অ্যামিউজমেন্ট ক্লাবে শুটিং চলছিল। এই ইউনিটে ছিলেন নায়িকা পরীমনি ও কয়েকজন বিদেশিসহ কমপক্ষে ২৫০ জন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে শুটিংয়ের শেষ পর্যায়ে একদল দুর্বৃত্ত অতর্কিত হানা দেয়। এ সময় ৭-৮ যুবক নায়িকা পরীমনিকে অপহরণ করার চেষ্টা করে।

খবর পেয়ে রামু থানার একদল পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলের আশপাশে অভিযান চালিয়ে জড়িত তিনজনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

এ ঘটনায় শুটিং ইউনিটের সদস্য সুমি আক্তার এবং রফিকুল ইসলামসহ তিনজন আহত হয়েছে। আহতদের মিঠাছড়ি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জাজ মাল্টিমিডিয়ার প্রোডাকশন ম্যানেজার উজ্জল জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে পরীমনি বলেন, ‘শুটিং স্পটে অনেক র‌্যাব, পুলিশ ছিল। আমি প্রথমত ভেবেছিলাম, নিরাপত্তার জন্য তাদের রাখা হয়েছে। পরে জানতে পারলাম স্থানীয়দের সঙ্গে কী নিয়ে যেন ঝামেলা হয়েছে। তবে আমি সেভ আছি, ভালো আছি।’

‘রক্ত’ পরিচালনা করছেন ওয়াজেদ আলী সুমন। তিনি বলেন, ‘গানের শুটিংয়ের কারণে আমি ঢাকায় আছি। ফলে এ বিষয়ে এখনও কিছু শুনিনি। তবে পরী ভালোই আছে। আমার সঙ্গে আজও কথা হয়েছে।’

ছবিটির প্রযোজক আবদুল আজিজ বলেন, ‘আসলে বিষয়টি কী হয়েছে তা এখনও বুঝে উঠতে পারছি না! তবে কিছু লোক এখানে এসে ঝামেলা করছিল। তাই পুলিশ কয়েকজনকে আটক করেছে। আমাদের শুটিং স্বাভাবিকভাবেই চলছে। আমাদের কোন সমস্যা নেই।’

এ প্রসঙ্গে রামু থানার অফিসার ইনচার্জ প্রভাষচন্দ্র ধর জানান, বড় ইউনিট নিয়ে জাজ মাল্টিমিডিয়া রামুতে শুটিং করলেও আগে থেকে পুলিশকে তারা কিছু জানায়নি। ফলে শত শত মানুষ শুটিং দেখতে এলে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

মতামত