টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মা লাঞ্ছিত: চট্টগ্রামে প্রতিশোধ নিতে শিশুকে গলাটিপে হত্যা

চট্টগ্রাম, ০৪  আগস্ট (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রামে রিয়া মনি নামে ৩ বছরের শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর পানির ড্রামে রেখে দেয় ফুফাতো বোন শাম্মী আকতার (১৬)। মামা কর্তৃক নিজের মাকে লাঞ্ছিত হতে দেখে প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য আপন মামাতো বোনকে গলা টিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে আটক শাম্মী।

ইপিজেড থানাধীন আলিশাহ্ কবরস্থান গলিতে ঘটে এই মর্মান্তিক হত্যাকান্ড। নিহত শিশু রিয়া মনি পিরোজপুর জেলার, মঠবাড়িয়া থানার,চালতাবুনিয়া গ্রামের হাবিুবর রহমানের ৩য় কন্যা।

বুধবার রাতে পুলিশের কাছে এমন স্বীকারোক্তি প্রদান করে আটক শাম্মী আকতারকে নিয়ে পুলিশ একই এলাকার আজাদ মঞ্জিলের পাঁচতলার বাসা থেকে শিশু রিয়া’র লাশ উদ্ধার করেছে।

সিএমপির ইপিজেড থানা পুলিশ এঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, বুধবার দুপুরের দিকে খেলতে নিয়ে যাবার কথা বলে শাম্মী রীয়াকে নিয়ে যায় পরে বাসায় নিয়ে করে তাকে গলা টিপে হত্যা করে লাশ পানির ড্রামের মধ্যে লুকিয়ে রাখে।

এ ব্যাপারে ইপিজেড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাহমুদ জানায়, বুধবার দুপুর ১২টার দিকে নিহত রিয়া মনির বাবা হাবিবুর রহমান থানায় এসে রিয়া মনির নামে নিখোঁজ ডায়েরি করে। এসময় শাম্মী আকতারও রিয়া মনিকে খুজেঁ পাচ্ছে না বলে মামা হাবিবুর রহমানের সাথে থানায় আসে।

হাবিবুর রহমান আমাদের জানায়, তার মেয়ে রিয়া মনি তার বোনের মেয়ে শাম্মীর সাথে খেলতে যায়। এরপরেই রিয়াকে আর খুঁজে পায়না বলে জানায়। শাম্মীর পরিবারের সাথে পারিবারিক কলহ ছিলো হাবিবুর রহমান এমন তথ্য পেয়েই পুলিশ শাম্মী আকতারকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে শিশু রিয়া মনিকে হত্যার কথা স্বীকার করে বলে জানায় ওসি জাবেদমাহমুদ।

এর পর পরই পুলিশ রাতে শাম্মী আকতারের বাসার পানির ড্রাম থেকে নিহত শিশু রিয়া মনির লাশ উদ্ধার করে। এবং ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় নিহত রীয়ার বাবা বাদি হয়ে বোন বোনের মেয়েসহ আরো কয়েকজনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মতামত