টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নিহত জঙ্গিদের মধ্যে চট্টগ্রামের সাব্বির নেই, থানায় বাবার জিডি

চট্টগ্রাম,৩০ জুলাই (সিটিজি টাইমস)::  ঢাকার কল্যাণপুরে নিহত ৯ জঙ্গির মধ্যে চট্টগ্রামের সাব্বিরুল হক চৌধুরী কনিক (২২) নেই বলে দাবি করেছে তার পরিবার।

সাব্বির এখনও নিখোঁজ দাবি করে শুক্রবার রাতে নগরীর বাকলিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি (নং- ১৪০২) করেছেন তার বাবা আজিজুল হক চৌধুরী।

আজিজুল হক আনোয়ারা উপজেলার বরুমচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি।

এছাড়া তিনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের অবসরপ্রাপ্ত কর পরিদর্শক। বর্তমানে পরিবার নিয়ে বাকলিয়া থানাধীন মিয়াখান রোডের পূর্ব বাকলিয়া এলাকার চৌধুরী নিবাসের চতুর্থ তলায় ভাড়া থাকছেন।

জিডিতে আজিজুল হক উল্লেখ করেছেন, চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৫টায় রাউজান উপজেলার এক বন্ধুর বিয়েতে যাওয়ার কথা বলে বাকলিয়ার বাসা থেকে বের হয় সাব্বিরুল হক। এরপর বিগত চার মাস ধরে তার কোনো খোঁজ মেলেনি।

নিখোঁজের ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকেও এর আগে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়নি বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ জুলাই রাতে কল্যাণপুরের ৫ নম্বর সড়কে তাজ মঞ্জিল নামের ছয় তলা একটি ভবনের চতুর্থ তলায় অভিযানে গিয়ে হামলার মুখে পড়ে পুলিশ।

পরের দিন ভোরে সেখানে সোয়াতের বিশেষ অভিযানে নিহত হয় সন্দেহভাজন ৯ জঙ্গি। উদ্ধার করা হয় অস্ত্র ও বিস্ফোরক।

এদের মধ্যে নিহত ৮ জঙ্গির পরিচয় প্রকাশ করে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। তারা হলেন- সাজাদ রউফ অর্ক, জোবায়ের হোসেন, আবদুল্লাহ, আবু হাকিম নাইম, তাজ-উল হক রাশিক, আরিফুজ্জামান খান, মতিয়ার রহমান ও রায়হান কবির।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম জানান, নির্বাচন কমিশনের ডেটাবেজ থেকে জঙ্গিদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে।

তবে বিভিন্ন সূত্র থেকে অপর যে জঙ্গির পরিচয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়, তিনি চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল হক চৌধুরীর ছেলে সাব্বিরুল হক কনিক।

সাব্বির ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি-চট্টগ্রামের (আইআইইউসি) ইকনোমিক অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ছাত্র। গোল্ডেন জিপিএ পেয়ে সরকারি মুসলিম হাইস্কুল থেকে ২০১০ সালে এসএসসি এবং ২০১২ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন তিনি।

মতামত