টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ফটিকছড়িতে পৃথক ঘটনায় দুইজনের মৃত্যু

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি থেকে

চট্টগ্রাম, ২২ জুলাই (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে পৃথক ঘটনায় শিশু ও মহিলাসহ ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ফটিকছড়িতে দুই সন্তানের জননীর আত্মহত্যা

ফটিকছড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে দুই সন্তানের জননী আত্মহত্যা করেছে। আজ শুক্রবার দুপুরে নিজ শয়ন কক্ষের বিমের সাথে ফাঁস লাগানো অবস্থায় পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে। উপজেলার নানুপুর ইউনিয়নের খিরাম গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম শাহিদা আকতার (২৬)। তার স্বামী স্থানীয় বাসিন্দা ওমান প্রবাসী মুহাম্মদ আলাউদ্দিন। তাঁর দুইটি কন্যা সন্তান রয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ওসমান গণি বাবু বলেন, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে শাহিদার ছোট মেয়ের কান্নায় ঘুম ভাঙ্গে পরিবারের অন্য সদস্যদের। এসময় শাশুড়ি ও অন্যদের ডাকে শাহিদার কোন সাঁড়া না পেয়ে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে দেখেন ঝুঁলন্ত অবস্থায় তাঁর লাশ।
ফটিকছড়ি থানার উপ-পরিদর্শক রাজিব জানান, ‘লোকজনের মাধ্যমে শুক্রবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে পারিবারিক কলহের জের ধরে এ আত্মহত্যা কারণ বলে জানা গেছে।

ফটিকছড়িতে পুকুরে ডুবে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

ফটিকছড়িতে পুকুরে ডুবে এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। আজ (শুক্রবার) সকাল দশটায় উপজেলার কাঞননগর ইউনিয়নে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তার নাম- মোহাম্মদ সাইমন(৮)। সে মধ্য কাঞ্চনগর গ্রামের বাচা হাজীর বাড়ির রাজা আলীর একমাত্র সন্তান। সে মধ্য কাঞ্চননগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্র।
বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি সদস্য আাক্কাছ উদ্দিন বলেন, সকাল সাতটা থেকে সাইমুনকে খুঁজে পাচ্ছিল না তার পরিবার। সম্ভাব্য সব জায়গায় খুজে না পেয়ে সকাল দশটার দিকে বাড়ির পাশে পুকরে খোঁজাখুজি করে। এক পর্যায়ে পুকর ঘাটের নিচে তার লাশ পাওয়া যায়।
স্থানীয় প্রতিবেশী মোহাম্মদ নোমান বলেন, ছেলেটি সাতারও জানতো । আট বছরের ছেলে, কোন রোগও ছিল না। কিভাবে সে পানিতে ডুবে মারা গেল; বিষয়টি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। তবে, তার শরীরে কোন প্রকার আঘাতের চিহ্ন নেই। বিকেলে লাশ দাফন করা হয়েছে ।
এদিকে, একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে বাব-মা বাকরুদ্ধ। তাদের কান্নার আহাজারীতে এলাকায় শোকের মাতম চলছে।

মতামত