টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নর্থ সাউথের উপ-উপাচার্যের বাড়ি অপারেশনাল হাউস!

Pro-Vcচট্টগ্রাম, ১৭ জুলাই (সিটিজি টাইমস)::গুলশানের হলি আর্টিসান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলায় জড়িতদের বাড়িভাড়া দেওয়ার অভিযোগে শনিবার নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপ-উপাচার্য গিয়াসউদ্দীন আহসানসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে গিয়াসউদ্দীনের বাড়িকে ‘অপারেশন হাউজ’ বলে উল্লেখ করেছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গিয়াসউদ্দীনের বসুন্ধরার বাড়ি থেকেই হামলার পরিকল্পনা করা হয়। জঙ্গিরা মে মাসের শেষ সপ্তাহে এই বাড়িটি ভাড়া নেয়। জঙ্গিরা স্ত্রী, ভাই এবং শ্যালক থাকবে বলে বাসাটি ভাড়া নেয়। এখান থেকেই তারা আর্টিসান রেস্টুরেন্ট রেইকি করে।

গিয়াস উদ্দীন নর্থ সাউথের স্কুল অব হেলথ অ্যান্ড লাইফ সায়েন্সের ডিনের দায়িত্বও পালন করছেন।

গুলশান হামলার ঘটনায় আটক জঙ্গি ও বিভিন্ন তথ্যের ভিত্তিতে কাউন্টার টেরোরিজমের একটি অভিজ্ঞ তদন্ত দল গুলশান হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার তদন্ত করছেন। তদন্তে বেরিয়ে আসে হামলার আগে ঘাতকরা কোথায় কোথায় অবস্থান নিয়েছিল।

শনিবার রাতে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য গিয়াস উদ্দীন আহসান ছাড়াও তার ভাগ্নে আলম চৌধুরী ও ভবনের ম্যানেজার মাহবুবুর রহমান তুহিনকে আটক করা হয়। পুলিশ ওই বাসায় তল্লাশি করে গ্রেনেড রাখার বালুসহ বিভিন্ন আলামত উদ্ধার করেছে। নর্থ সাউথের এই শিক্ষক গুলশান ও শোলাকিয়ার হামলার সঙ্গে জড়িত কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান।

গোয়েন্দা সূত্র জানায়, গুলশানের আর্টিসান রেষ্টুরেন্টে হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ও তার সহযোগীদের শনাক্ত করা হয়েছে। পরিকল্পনাকারী দেশেই অবস্থান করছেন। গুলশান হামলার ঘটনা তদন্ত শেষে ওই বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। শিগগিরই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এর আগে জুলাইয়ের ১ তারিখ (শুক্রবার) গুলশানের আর্টিসান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। এঘটনায় পুলিশের দুইজন কর্মকর্তাসহ মোট ২২ জন নিহত হন। এসময় ৬ জঙ্গিও নিহত হয়।

মতামত