টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাউজানে মাদরাসা ছাত্রের লাশ নিয়ে যেতে মাকে ফোন: দুইদিনেও লাশ নয়, মেলেনি কোন সন্ধান

এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন
রাউজান প্রতিনিধি 

raoanচট্টগ্রাম, ১৪  জুলাই (সিটিজি টাইমস)::রাউজানের পূর্ব গুজরায় সালাউদ্দিন (১৯) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্র ঘর থেকে বের হওয়ার মাত্র দুই-আড়াই ঘন্টার মধ্যে মায়ের মোবাইলে কল করে তার লাশ নেয়ার সংবাদ দেয়া হয়েছে। এ সংবাদে বুধবার রাতভর ও বৃহস্পতিবার দিনভর স্বজনরা খোঁজাখুজি করলেও দুইদিনেও ওই ছাত্রের লাশতো দূরের কথা তার কোন সংবাদও মেলেনি। লাশ কিংবা জীবিত কোন হদিস না পাওয়ায় অনেকে এই বিষয়টিকে নাটকীয় ঘটনা হিসেবেও মনে করতে শুরু করেছেন। এলাকার লোকজনের কাছে জানা যায়, পূর্ব গুজরা ইউনিয়রের আধার মানিক গ্রামের ননা হাজী তালুকদারের বাড়ির হাজী নুরুল আজিম বুলুর ছেলে মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্র সালাউদ্দিন (২০) বুধবার স ন্ধ ্যায় কাগতিয়া যাওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বের হয়। এরপর রাত ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার দিকে সালাউদ্দিনের মোবাইল নম্বর থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি তার মাকে ফোন করে বলে যে সালাউদ্দিনকে হত্যা করে ডোমখালীতে ফেলে রাখা হয়েছে। এরপর সালাউদ্দিনের দুটি মোবাইলই বন্ধ পাওয়া যায়। এই ঘটনার পর প্রতিবেশী ও এলাকার লোকজন রাতভর এবং গতকাল বৃহস্পতিবার দিনভর কথিত নিহত সালাউদ্দিনের লাশ কিংবা জীবিত কোন হদিশ পায়নি। এ প্রসঙ্গে পূর্ব গুজরা পুলিশ ফাঁড়ি (তদন্ত) কেন্দ্রের ইনচার্জ মহসিন রেজা বলেন ‘নিখোঁজ ছেলেটির কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। তবে এব্যাপারে তার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোন সাধারন ডায়রিও করা হয়নি। বিভিন্নভাবে জানতে পেরেছি তাদের পরিবারের মধ্যে দ্বন্ধ রয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে, হয়তো এই কারনে সালাউদ্দিন একটি নাটক সাজিয়ে আত্মগোপনেও থাকতে পারে। তারপরও আমরা বিষয়টি খবর নিয়ে দেখছি।

এদিকে এই ঘটনার পর থেকে সালাউদ্দিন নিখোঁজ ও লাশের খবর দেয়া সত্বেও কোন হদিশ পাওয়া না যাওয়ায় এলাকায় এনিয়ে তোলপাড় চলছে।

মতামত