টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

‘সোনার বাংলা’র প্রথম যাত্রা, আজ আসছে চট্টগ্রামে

চট্টগ্রাম, ২৬  জুন (সিটিজি টাইমস):: ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে চলাচলকারী সর্বশেষ এবং সর্বাধুনিক ট্রেন হিসেবে যুক্ত হওয়া সোনার বাংলা এক্সপ্রেস প্রথমবারের মতো আনুষ্ঠিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী রোবরার সকাল ৭টায় যাত্রী নিয়ে ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে প্রথম যাত্রা শুরু করে ট্রেনটি।

এর আগে সোনার বাংলা এক্সপ্রেস শনিবার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ট্রেনটি ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে বিরতিহীনভাবে চলাচল করবে। শনিবার উদ্বোধন করা হলেও আনুষ্ঠানিকভাবে এর যাত্রা শুরু হলো আজ থেকে।

জানা গেছে, সোনার বাংলা এক্সপ্রেস সকাল ৭টায় ঢাকার কমলাপুর থেকে যাত্রা করে সাড়ে ১২টায় চট্টগ্রাম পৌঁছাবে। ট্রেনটি বিকেল ৫টায় চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ছেড়ে রাত ১০টা ৪০ মিনিটে কমলাপুর স্টেশনে পৌঁছবে। ট্রেনটি ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশন ছাড়া অন্য কোনো স্টেশনে থামবে না।

সোনার বাংলা এক্সপ্রেসের ১৬টি বগির মধ্যে চারটি এসি চেয়ায়ের (স্নিগ্ধা) প্রতিটিতে ৫৫ করে ২২০ আসন, সাতটি শোভন চেয়ারের বগিতে ৪২০ আসন, দুটি এসি বার্থে ৩৩টি করে ৬৬ আসন এবং দুটি খাবার গাড়ির সঙ্গে সংযুক্ত ৪০টি আসন রয়েছে। এসব আসনে যাত্রীদের ভাড়া গুণতে হবে যথাক্রমে এসি বার্থে ১২০০ টাকা, এসি চেয়ারে ১ হাজার টাকা আর শোভন চেয়ারে ৬০০ টাকা।

তবে ওয়াইফাই সুবিধা, নামাজের স্থান, প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা থাকছে এই ট্রেনটিতে।

নতুন এ ট্রেনের প্রথম যাত্রা উপলক্ষে রোববার সকাল থেকেই কমলাপুর রেল স্টেশনের প্লাটফর্মে ছিল সাজ সাজ রব। ৩ নম্বর প্লাটফর্মে অপেক্ষা করছিল সাজানো সর্বাধুনিক এই ট্রেনটি। ট্রেনের কর্মীরা হাতে ফুল নিয়ে প্রথম যাত্রার যাত্রীদের শুভেচ্ছা জানাতে অপেক্ষা করছিলেন ট্রেন ছেড়ে যাওয়ার আগে।

কমলাপুর রেল স্টেশনের ব্যবস্থাপক সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ঢাকা-চট্টগ্রাম পথে চলাচলকারী দ্বিতীয় বিরতিহীন ট্রেন। ‘ট্রেনটি খুব আধুনিক, যাত্রীরা খাবার গাড়ি ও নামাজের কক্ষে সহজে যাতায়াত করতে পারবেন। যাত্রীদের সুবিধার্থে ট্রেনের খাবার ঘরে সুনির্দিষ্ট মূল্য তালিকা রাখা আছে।

মতামত