টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ফের অতিরিক্ত মুনাফা: চট্টগ্রামে পোশাক বিক্রির দুটি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

ছবিঃ অনুপম বড়ুয়া

ছবিঃ অনুপম বড়ুয়া

চট্টগ্রাম, ১৯ জুন (সিটিজি টাইমস)::  সতর্ক করার পরও অতিরিক্ত মুনাফা করায়  রোববার নগরীর অভিজাত শপিংমল হিসেবে পরিচিত মিমি সুপার মার্কেটের ‘আকর্ষন’ ও টেরিবাজারের পরিচয় মার্কেটের ‘স্টারপ্লাস’কে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়।

গত বুধবার নগরীর শপিংমলগুলোতে ক্রয় ও বিক্রয় মূল্যের মধ্যে দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ পার্থকের বিষয়টি ধরা পড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে।ওইদিন স্টারপ্লাস ও মেগামার্টে কেনা দামের চেয়ে তিনগুণ বেশি লাভে পাঞ্জাবি বিক্রির প্রমাণ পেয়েছিল আদালত।মেগামার্ট ঢাকার উর্দু রোড থেকে এক হাজার টাকা দিয়ে কেনা পাঞ্জাবি সাড়ে তিন হাজার টাকায় বিক্রি করছিল। আর কাপড়ভেদে দুই থেকে চার হাজার টাকা লাভ করছিল স্টারপ্লাস।

সে সময় ক্রয় ও বিক্রয় মূল্য সামঞ্জস্য করে নিতে সতর্ক করে দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেওয়া চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিলুর রহমান বলেন, প্রথম পর্যায়ে অতিরিক্ত মুনাফা করায় সতর্ক করে দেওয়ার পরও কয়েকটি দোকানে অসাঞ্জস্যতা পাওয়া গেছে।টেরিবাজারের পরিচয় শপিংমলের ‘স্টারপ্লাস’ মেয়েদের ‘গাউন’ চার হাজার টাকায় কিনে ১২ হাজার টাকায় বিক্রি করায় তাদেরকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় ‘স্টারপ্লাস’র মালিক পোশাকটি আট হাজার টাকায় কেনা দাবি করলেও তার সপক্ষে কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি।

এছাড়াও ১৬ হাজার টাকার লেহেঙ্গা ৩৫ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি করায় মিমি সুপার মার্কেটের পোশাকের দোকান ‘আকর্ষন’কে এক লাখ টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

তবে গত বৃহস্পতিবারের অভিযানে সতর্ক করার পর মিমি সুপার মার্কেটের ‘ইয়াং লেডি’তে ন্যায্য মূল্যে পোশাক বিক্রি করতে দেখা গেছে  প্রথমবারের অভিযানে এ দোকানে ছয় হাজার টাকায় কেনা ‘সারারা’ লেহেঙ্গা ১৯ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রির প্রমাণ পেয়েছিল ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রোববার একই পোশাক সাড়ে ছয় হাজার থেকে সাত হাজারের মধ্যে বিক্রি করতে দেখা গেছে ওই দোকানে।

এসময় দোকানের মালিক মো. নুরুচ্ছফা ভ্রাম্যমাণ আদালতকে বলেন, “আমি সংশোধন হয়ে গেছি, স্যার। আর কখনও বেশি মুনাফা করব না।”

মতামত