টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সীতাকুণ্ডে মোবাইল চুরির অভিযোগে কিশোরকে পিটিয়ে জখম

মোঃ ইমরান হোসেন
সীতাকুণ্ড  প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ১৬ জুন (সিটিজি টাইমস):: সীতাকুণ্ডে মোবাইল চুরির অভিযোগে মো.ইউসুফ প্রকাশ হৃদয়(১৩) নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে মারাত্বকভাবে আহত করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় কিশোরের মা রেজিয়া বেগম গত বৃহস্পতিবার বাদি হয়ে অভিযুক্ত লোকমান সওদাগর,পুত্র মাসুদ ও সাহাবউদ্দিনকে আসামী করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছে বলে সীতাকুণ্ড থানার সেকেণ্ড অফিসার নিশ্চিত করেন। তবে লিখিত অভিযোগটি মামলার প্রস্ততি চলছে বলেও তিনি জানান।

জানা যায়,গত কয়েকদিন আগে উপজেলার সিরাজ ভূইয়া রাস্তার মাথা পণ্ডিম পাড়া এলাকায় লোকমান সওদাগরের মোবাইল চুরি করে প্রতিবন্ধী আবুল কাসেমের পুত্র হৃদয়। এরপর বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় মেম্বার আজাদের নেতৃত্বে একটি বৈঠকের সিদ্বান্ত হয় এবং বৈঠকে মেম্বার কঠোর ভাষায় বলেন সরকারী আইনমতে কিশোর ও অবুঝ ছেলের গায়ে আঘাত করা যাবে না। এরপর অভিযুক্ত লোকমান সওদাগর ও তার পুত্ররা বুধবার বিকালে কিশোর হৃদয়কে বাড়িতে যাওয়ার পথে তুলে নিয়ে একটি ঘরে আবদ্ধ করে ঝুলন্ত ফ্যানের সাথে আটকিয়ে তার কাটার প্লাস দিয়ে হাতের আঙ্গুলসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্বক ভাবে জখম করে। জখম পরবর্তী স্থানীয়রা উদ্ধার করে বুধরার রাতে সীতাকুণ্ড স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। এরপর কিশোর হৃদয়ের প্রতিবন্ধী পিতা থানায় আসতে না পারলেও মা রেজিয়া বেগম বাদি হয়ে থানায় অভিযুক্ত ৩ জনকে আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

স্থানীয় মেম্বার আজাদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,‘এ বিষয় নিয়ে আমি সমাজের সর্দার,অভিযুক্ত লোকমান সওদাগর ও কিশোর হৃদয়ের অভিভাবক নিয়ে একাধিক বৈঠক করি এবং ছেলেটি আমার কাছে দোষ স্বীকার করে আর কখনো করবে না বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করেন। আমিও অভিযুক্ত লোকমান সওদাগরকে একাধিক বার বলেছি ছেলেটি ভুলবশত চুরি করলেও ছেলেটি অবুঝ। আর ওকে কোন ভাবে শরীলে আঘাত করা যাবে না। আমার অনুপস্থিতিতে বুধবার বিকালে হৃদয়কে ধরে নিয়ে ফ্যানের সাথে জুলায়ে তার কাটার প্লাস দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে।

কিশোরকে আঘাতের বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত লোকমান সওদাগরকে ফোন করলে উনি ফোন রিসিভ করে বলেন আমি লোকমান সওদাগর না আমি জসিম।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সীতাকুণ্ড থানার সেকেণ্ড অফিসার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,‘লিখিত অভিযোগ হলেও মামলার প্রস্ততি চলছে,আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছি এবং আসামী গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখেছি।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত