টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ঐক্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে: জাসদ

jasadচট্টগ্রাম, ১৪ জুন (সিটিজি টাইমস)::  ১৪ দলের ঐক্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলে জানিয়েছে জাসদের এক একাংশ। তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে এ কথা জানান জাসদ নেতারা।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। সমাবেশের আয়োজন করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), ঢাকা মহনগর। সমাবেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেন তারা।

আশরাফুল ইসলামকে উদ্দেশ্য করে দলটির একাংশের সাধারণ সম্পাদক সাংসদ শিরিন আক্তার বলেন, নিজেদের মধ্যে কাঁদা ছোড়াছুড়ি না করে মুক্তিযুদ্ধের সকল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করে জঙ্গিবাদকে মোকাবেলা করুন।

তিনি বলেন, জাসদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হাসানুল হক ইনুকে হত্যার হুমকি দিয়ে যারা কাফনের কাপড় পাঠিয়েছে অবিলম্বে তাদেরকে চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার ও বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে। কাফনের কাপড়ের ভয়ে আমরা ভীত নই, জাসদ কাফনের কাপড়কে ভয় করে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন শিরিন আক্তার।

মানববন্ধনে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে নেত্রীকে বলবো আপনার জনপ্রশাসনমন্ত্রীকে থামান। এই সংকটের দিনে তিনি যে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিচ্ছেন তা বন্ধ করুন। একদিকে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে জঙ্গিরা হত্যার হুমকি দিচ্ছে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাসদকে ভণ্ড বলছে। এটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।’

তিনি বলেন, ১৪ দলের ঐক্য সুদৃঢ় থাকবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত দিতে হবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগকেই। আপনাদেরকে বলতে হবে আপনারা ঐক্য চান কি চান না।

তিনি আশরাফকে উদ্দেশ্য করে বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি মন্ত্রণালয়। আপনি এই ধরনের বক্তব্য না দিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে সামলান।

তিনি বলেন, একদিকে কাফনের কাপড় পাঠাচ্ছে জঙ্গিরা, জামায়াত-বিএনপি ক্রমাগত বিষোদগার করছে। আরেক দিকে আওয়ামী লীগের কোন ছোট নেতা নয়, সাধারণ সম্পাদক এবং একজন মন্ত্রী এসব মন্তব্য করছেন। এভাবে জঙ্গি ঠেকানো যাবে না।

জাসদ ঢাকা মহানগরীর সমন্বয়ক মীর হোসেন আক্তারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শওকত রায়হান, জাসদের কেন্দ্রীয় সদস্য সিদ্দিকুর রহমান, জাসদ ছাত্রলীগের সভাপতি শামসুল ইসলাম সুমন প্রমুখ।

সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি অডিটোরিয়ামে সোমবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা ও কর্মশালায় জাসদের সমালোচনা করে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

জাসদকে বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিবেশ সৃষ্টিকারী আখ্যায়িত করে আশরাফ বলেন, ‘বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রবাদীরা ষড়যন্ত্র করে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বাধীন একটি সফল মুক্তিযুদ্ধকে সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে বিতর্কিত করতে নানা অপচেষ্টা চালিয়েছে। এরা যদি বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিবেশ সৃষ্টি না করত তাহলে বাংলাদেশ আজ বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে একটি ভিন্ন বাংলাদেশ দেখত। সব সময় লক্ষ রাখবেন হঠকারীদের কখনোই প্রশ্রয় দেবেন না। তারা বড় বড় কথা বললেও তাদের সাহস কম। এই বৈজ্ঞানিক বিপ্লবীরা শতভাগ ভণ্ড।

সৈয়দ আশরাফের এই বক্তব্যের পর জাসদের মধ্যে সমালোচনা শুরু হয়। দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা এই বক্তব্যের প্রতিবাদ জানান। তবে জাসদের একাংশের প্রধান ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু আশরাফের বক্তব্যের কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি। শুধু বলেছেন, ‘নো কমেন্ট’।

মতামত