টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিতু হত্যার তদন্ত কর্মকর্তা বদল

চট্টগ্রাম, ১২ জুন (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রামে এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা হয়েছে। তদন্তে নতুন দায়িত্ব পেয়েছেন নগরীর সহকারী পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান। এছাড়া আটক আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। রবিবার সকালে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ এ সিদ্ধান্ত নেয়।

হত্যাকাণ্ডের পরের দিন চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় বাদী হয়ে মামলা করেন এসপি বাবুল আক্তার। ওই মামলা তদন্তের দায়িত্বে ছিলেন গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক কাজী রাকিব উদ্দিন। এক সপ্তাহ পর হলেও মামলার কোনো উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি না হওয়ায় তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের একটি দায়িত্বশীল সূত্র।

সূত্র আরও্ জানায়, চট্টগ্রামের চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কর্মকর্তা নিযুক্তির সাত দিনের মাথায় এই পরিবর্তন আনা হলো। আগের তদন্ত কর্মকর্তার আন্তরিকতা নিয়েও প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল। হত্যাকাণ্ডের সাত দিন পার হলেও কয়েক জনকে আটক আর গ্রেপ্তার ছাড়া মামলার তেমন অগ্রগতি নেই বললেই চলে। সার্বিকভাবে মামলার তদন্তে গতি আনতেই এই পরিবর্তন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

৬ জুন সকালে ছেলেকে স্কুলবাসে উঠিয়ে দিতে বাসা থেকে বের হওয়ার পরপরই ও আর নিজাম রোডে কোপানোর পর গুলি চালিয়ে হত্যা করা হয় পুলিশ কর্মকর্তা বাবুলের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে।

পুলিশ সদর দপ্তরে কর্মরত বাবুল আগে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ছিলেন। সম্প্রতি বদলি হলে তিনি ঢাকায় কর্মস্থলে যোগ দিলেও দুই সন্তান ও স্ত্রী চট্টগ্রামেই ছিলেন।

চট্টগ্রামে জঙ্গি দমনে বেশ কিছু অভিযানে নেতৃত্বের ভূমিকায় ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল। এই কারণে তার স্ত্রী খুনের পেছনে জঙ্গিদেরই সন্দেহ করা হচ্ছে। তবে খুনের পর এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনো রহস্য উন্মোচন করতে পারেনি পুলিশ।

মতামত