টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিতু হত্যা: সিসিটিভিতে দেখা সেই কালো মাইক্রোবাসটি আটক

mitoচট্টগ্রাম, ০৮ জুন (সিটিজি টাইমস)::  মাহমুদা খানম মিতু হত্যাকাণ্ডপুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যার ঘটনায় ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটিকে যে কালো মাইক্রোবাসটি অনুসরণ করতে দেখা গিয়েছিল সেটিকে আটক করেছে পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজে এই মাইক্রোবাসটিকে দেখা যায়।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার ইকবাল বাহার বুধবার রাত পৌনে আটটার দিকে এই মাইক্রোবাস আটকের খবর নিশ্চিত করেন। চট্টগ্রাম শহর থেকেই মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি। পুলিশ ওই মাইক্রোবাসের তথ্য খতিয়ে দেখছে বলেও জানান কমিশনার। এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার সিএমপি সদর দফতরে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে সিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য জানান, হত্যাকাণ্ডের পর ওই কালো মাইক্রোবাসটি মোটরসাইকেলের পেছন পেছন কোথায় গিয়েছিল পুলিশ তা জানার চেষ্টা করছে।

এই মাইক্রোবাসটিকে হত্যাকারীরা বিকল্প যান হিসেবে রেখেছিল বলে সন্দেহ করছিল পুলিশ। এ প্রসঙ্গে ইকবাল বাহার বলেছিলেন, ‘সাধারণত জঙ্গিরা তাদের অভিযানের সময় বিকল্প ব্যবস্থা রাখে। প্রয়োজন পড়লে তারা হয়তো এটা (মাইক্রোবাসটি) ব্যবহার করতো।’

এর আগে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটির নির্দিষ্ট কিছু ‘সময়ের’ মালিককে আটক করে পুলিশ। মোটরসাইকেলটি এর আগে কয়েকবার বিক্রি হয়েছিল বলেও জানতে পেরেছেন তারা।

মিতু হত্যা মামলায় চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ফরহাদাবাদ থেকে আবু নছর গুন্নু (৪৫) নামে সাবেক এক শিবিরকর্মীকে বুধবার গ্রেফতার করে পুলিশ। বুধবার সকালে সীতাকুণ্ড থানায় অপহরণসহ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত এই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খাতুন মিতু হত্যার ঘটনায় পুলিশের পাশাপাশি তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ। এছাড়াও এ হত্যার রহস্য উদঘাটনে পুলিশের পাশাপাশি মাঠে রয়েছে র‌্যাব, পিবিআই এর মতো গোয়েন্দা সংস্থাগুলো।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার (৫ জুন) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খাতুন মিতুকে ছুরিকাঘাত ও গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। পরে এই ঘটনায় অজ্ঞাত তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন বাবুল আক্তার।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত