টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে রমজানে বাজার দর নিয়ন্ত্রণে থাকবে ১০টি মনিটরিং টিম

ছবিঃ অনুপম বড়ুয়া

ছবিঃ অনুপম বড়ুয়া

চট্টগ্রাম, ০১  জুন (সিটিজি টাইমস): রমজান এলেই নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়ে নিত্যপণ্যের বাজার। এটি যেন দেশে এক চিরায়িত নিয়মে পরিণত হয়েছে। সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা বাড়াতে থাকে নিত্যপণ্যের দাম। যার প্রভাব ইতোমধ্যেই নগরীর বাজারগুলোতে পড়তে শুরু করেছে। তবে রমজান শুরুর আগেই বাজার দর স্থিতিশীল রাখতে নগরীতে ১০টি মনিটরিং টিম থাকবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।

বুধবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভায় তিনি কথা জানান।

তিনি জানান, কেউ যাতে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের ওপর অতিরিক্ত মুনাফা করতে না পারে/সেজন্য বাজার মনিটরিং ও অভিযান পরিচালনার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এক রমজানে মনিটরিং এই কার্যক্রম শুরু হবে। পণ্য ক্রয় করার সময় রসিদ দিতে হবে। অভিযানের সময় রসিদ না পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে সংশ্লিষ্ট বিক্রেতার বিরুদ্ধে। কোনোক্রমেই ক্রয় মূল্যের চেয়ে খুচরা পর্যায়ে ভোগ্যপণ্যে প্রতি কেজিতে (কস্টিংসহ) নির্ধারিত টাকার বেশি লাভ করা যাবে না।

এ জন্য বাজার দর নিয়ন্ত্রণে ৮-১০টি মনিটরিং টিম থাকবে। এসব টিম শুধু এক কিংবা দুইদিন না, তারা পুরো রমজান বাজার মনিটরিং করবে। যতবড় ব্যবসায়ী কিংবা নেতা হউক কেউ যদি অসাধু ব্যবসার সাথে জড়িত থাকে তাহলে এসব টিম ব্যবস্থা নিব বলে জানান জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।

জেলা প্রশাসক বলেন, ‘রমজানে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ভোগ্য পণ্যের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে অধিক মুনাফা লাভের জন্য দাম বাড়ায়। বাজার নিয়ন্ত্রণে এ বছর নগরীতে এলাকা ভিত্তিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হবে। ধর্মীয় বিষয়গুলো তুলে ধরে ব্যবসায়ীদের মাঝে সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিলি করা হবে। এছাড়াও প্রত্যেক ব্যবসায়ী মূল্য তালিকা অব্যশই টাঙিয়ে রাখতে হবে। কেউ যদি এর বিপরীত হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিবে মোবাইল কোর্ট।৭৫জন ম্যাজিস্ট্রেট নতুনভাবে যোগদান করেছে। যারা বিভিন্ন জেলা পর্যায়ে কাজ করবে। চট্টগ্রাম জেলায় ১২জন ম্যাজিস্ট্রেট নতুনভাবে যোগদান করছে। আগে ম্যাজিস্ট্রেট সংকট থাকার কারণে কম মোবাইল কোর্ট ছিল কিন্তু এবারে এলাকা ভিত্তিক পর্যাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হবে। আশা করি বাজার দর নিয়ন্ত্রণ থাকবে।’

‘রসুনের দাম আন্তজার্তিক পর্যায়ে বাড়ার কারণে আমাদের দেশেও বেড়েছে। তবে পিঁয়াজের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। সব মিলিয়ে দুই একটা আইটেম ছাড়া বাকিসব পণ্য সহনীয় পর্যায়ে আছে’ বলেন-জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।

এ ছাড়া বিভিন্ন বাজার সম্পর্কে ভোক্তাদের অভিযোগ ও পরামর্শ জানানোর জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেটদের মোবইল নম্বর দিয়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রচারণা চালানো হবে বলেও জানান জেলা প্রশাসক। এতে চট্টগ্রামের ৩১টি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অংশ নেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত