টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামের দুই ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ

চট্টগ্রাম, ২৬ মে (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রামের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ও অতিরিক্তি চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে বিচারিক কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় বিভাগীয় মামলা দায়েরের নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট।

সুপ্রিম কোর্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্ত দুই ম্যাজিস্ট্রেট হলেন, মোহাম্মদ ফরিদ আলম ও নুরুল আলম মোহাম্মদ নিপু।

সুপ্রিম কোর্ট সূত্র জানান, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার পরামর্শক্রমে এ সংক্রান্ত মামলা দায়েরের জন্য জেনারেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিএ) কমিটিকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল সৈয়দ আমিনুল ইসলাম বলেন, দুজনের বিরুদ্ধেই কিছু অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ ছিল।

প্রাথমিকভাবে সে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আমরা বিভাগীয় মামলার সুপারিশ করে মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। এখন মন্ত্রণালয় মামলা করবে এবং পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করবে। আর পূর্ণাঙ্গ তদন্তের পর সুপারিশ অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, একইসঙ্গে অভিযোগের গুরুত্ব বিবেচনায় অতিরিক্তি চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল আলম মোহাম্মদ নিপুকে বর্তমান কর্মস্থল থেকে প্রত্যাহার করে বরগুনার যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে বদলি করারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এ সংক্রান্ত পৃথক দুটি চিঠি গত ১১ মে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর পাঠানো হয়েছে বলেও জানা গেছে।

এছাড়া ওই দুজনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ তদন্তের জন্য গাজীপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ) সৈয়দ জাহেদ মনসুরকে নিয়োগ দেয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছে জেনারেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জিএ) কমিটি।

জানা গেছে, চট্টগ্রামের একটি মামলায় আসামিদের জামিন দেয়ার ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেসির মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ফরিদ আলম ও অতিরিক্তি চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল আলম মোহাম্মদ নিপু অনিয়ম ও দুর্নীতির আশ্রয় নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠে।

এ ধরনের অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টির প্রথমিক তদন্ত করে গত ২০ এপ্রিল প্রতিবেদন দেয় হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী। আর তদন্তে দুজনের বিরুদ্ধেই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। প্রতিবেদনে একই সঙ্গে দুজনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলারও সুপারিশ করা হয়।

মতামত