টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

চট্টগ্রাম, ২৬ মে (সিটিজি টাইমস):: রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর গুলশান থানায় এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলার তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছেন উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. রাব্বী।

এর আগে, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক দাবি করেন, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব আসলাম চৌধুরী ইসরাইলের সাথে মিশে বাংলাদেশে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করছিলেন বলে স্বীকার করেছেন। ফলে আজই রাজধানীর গুলশান থানায় তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের করা হবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর রাজারবাগের পুলিশ টেলিকম ভবনে আয়োজিত এক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান।

পুলিশ প্রধান বলেন, ‘ইসরাইলের লিকুদ পার্টির নেতাদের কাছে বাংলাদেশের বর্তমান সরকারকে অজনপ্রিয় করে একটি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করতে চেয়েছিল। এ ধরনের প্রমাণ আমরা প্রাথমিক তদন্তে পেয়েছি। আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার জন্য আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছিলাম। মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিয়েছে।’

‘জয়েন্ট ওয়ার্কশপ অন টেরোরিস্ট থ্রেট অ্যান্ড রেসপন্স’ শীর্ষক পাঁচ দিনব্যাপী এই কর্মশালার আয়োজন করে বাংলাদেশ পুলিশ ট্রেনিং একাডেমি ও সিঙ্গাপুরের ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর পলিটিক্যাল ভায়োলেন্স অ্যান্ড টেরোরিজম রিসার্চ।

জানা গেছে, গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক গোলাম রব্বানি বাদী হয়ে গুলশান থানায় এই মামলা করবেন।

ইসরাইলের ক্ষমতাসীন লিকুদ পাটির সদস্য মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলামের সাক্ষাতের ছবি ও খবর সম্প্রতি গণমাধ্যমে এলে আসলামকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাকে সন্দেহভাজন হিসেবে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হচ্ছে।

আওয়ামী লীগ নেতারা অভিযোগ করেন, শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করতে বিএনপি ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইল এবং দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে মিলে ‘ষড়যন্ত্র’ করছে।

তবে ইসরাইল কিংবা মোসাদের সঙ্গে কোনো ধরনের ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বিএনপির পক্ষ থেকে এক সরকারের ‘নাটক’ বলে মন্তব্য করা হয়।

অন্যদিকে মেন্দি সাফাদি বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, ‘বাংলাদেশের পরিস্থিতি, সেখানে সংখ্যালঘুদের অবস্থা এগুলো সবাই জানেন – আমরা দুজনে সে সব নিয়েই কথা বলেছি। তাও সেটা একটা প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে। আমরা বাংলাদেশে সামরিক অভ্যুত্থানের পরিকল্পনা করছিলাম বা সরকারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছিলাম-এর চেয়ে হাস্যকর কিছু হতেই পারে না।’

তিনি আরো দাবি করেছেন যে ‘সরকার ফেলার চক্রান্ত একটা প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে করা হচ্ছে – তারপর আবার চক্রান্তকারীরা হাসিমুখে তাদের ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন, এ জিনিস কোথাও আবার হয় না কি?’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত