টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কক্সবাজারের ১৯ যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে আদেশ ১৪ জুলাই

চট্টগ্রাম, ২৫ মে (সিটিজি টাইমস):: একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার ১৯ জনের মধ্যে পলাতক ১২ আসামীর বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রদানের পর মামলার পরবর্তি আদেশের জন্য আগামী ১৪ জুলাই দিন ধার্য্য করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

বুধবার ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল এই দিন নির্ধারণের আদেশ দেন।

এসময় ট্রাইব্যুনালে ছিলেন প্রসিকিউটর রানাদাস গুপ্ত এবং তাকে সহযোগিতা করেন প্রসিকিউটর সুলতানা রেজিয়া ও প্রসিকিউটর তাপস কান্তি বল।

এ মামলায় ট্রাইব্যুনালে আসামীপক্ষে উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী তারিকুল ইসলাম ও আইনজীবী মাসুদ রানা।

এর আগে গত ২২ মে আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন ট্রাইব্যুনাল-২(বর্তমানে নিস্ক্রিয়)। পরে এই মামলায় ৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তবে কারাগারে থাকা অবস্থায় আসামিদের মধ্যে ১ জন মারা যান। বাকি ৬ জন কারাগারে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২২ মে কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার ১৬ রাজাকারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল।

আসামিদের মধ্যে কক্সবাজারের ছালামতউল্লাহ খান (৮০) ও রশিদ মিয়াকে গ্রেপ্তার করে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হলে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল।

পরে এই মামলায় মহেশখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ নলবিলা গ্রামের বাসিন্দা মৌলভী নুরুল ইসলাম (৭৫), মহেশখালী পৌরসভার পুটিবিলা মুহুরী ডেইলের বাসিন্দা জিন্নাত আলী (৭৮) এবং ঘরকঘাটা জামায়াতের মৌলভী ওসমান গনিকেও গ্রেপ্তার করে পুলিশ ।

গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে একাত্তরে মহেশখালী দ্বীপে হত্যা, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ, নির্যাতনসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। এসবকল আসামিরা একাত্তরে স্থানীয় শান্তি কমিটির সভাপতি মৌলভী জাকারিয়ার ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি রশিদ মিয়ার সহযোগী ছিলেন।

তবে ওই এলাকায় এখনো ৭০ জনের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে ৩১ জন বিভিন্ন সময়ে মারা গেছেন। বাকিদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ রয়েছে।

আরো অভিযোগ রয়েছে, একাত্তরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর একনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন মৌলভী নুরুল ইসলাম ও জিন্নাত আলী।

এ মামলার মামলার অন্যান্য আসামীরা হলেন, মৌলভী জকরিয়া শিকদার(৭৮), মো. রশিদ মিয়াবিএ(৮৩), অলি আহমদ (৫৮),মো. জালাল উদ্দিন (৬৩), মোলভী নুরুল ইসলাম (৬১), মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সাবুল (৬৩), মমতাজ আহম্মদ (৬০), হাবিবুর রহমান (৭০), মোলভী আমজাদ আলী (৭০), মৌলভী আব্দুল মজিদ (৮৫), বাদশা মিয়া(৭৩), ওসমান গণি (৬১),আব্দুল শুক্কুর (৬৫), মোলভী সামসুদ্দোহা (৮২),মো. জাকারিয়া (৫৮), মো. জিন্নাহ ওরফে জিন্নাত আলী (৫৮) মোলভী জালাল (৭৫) ও আব্দুল আজিজ (৬৮)।

মতামত