টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সাতকানিয়ায় আওয়ামীলীগের ১১ নেতাকে বহিস্কার

দলের মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ

শহীদুল ইসলাম বাবর
দক্ষিন চট্টগ্রাম প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ২৩ মে (সিটিজি টাইমস):: দক্ষিন চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় আসন্ন ইউপি নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে অংশ নেওয়া বিদ্রোহী প্রার্থীদের দলের সকল পদ থেকে বহিস্কার করেছে আওয়ামীলীগ। এ তালিকায় মোট এগার জন রয়েছে। এছাড়াও এসব নেতাদের সহযোগী হিসেবে কাজ করা দলের অন্য নেতাকর্মীদেরও কারণ দর্শানোর নৌটিশ দেওয়া হচ্ছে। সন্তোসজনক জবাব দিতে ব্যর্থ হলে তাদের বিরুদ্ধেও কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গত রবিবার সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামীলীগের কার্যলয়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী। এছাড়াও বহিস্কৃত নেতাদের অতিতের কর্মকান্ড পর্যালোচনা করে যদি বিএনপি জামায়াতের সহিংসতায় ইন্ধন দেওয়া কিংবা অর্থ দেওয়ার মত ঘটনা বেরিয়ে আসে তাহলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। বলে জানান তিনি। এর আগে বিদ্রোহী প্রার্থীদের প্রার্থীতা প্রত্যহার করে দলের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছিল দলটি। তার পরেও দলীয় নির্দেশ অমান্য করে শৃঙ্খলা ভঙ্গ করার অপরাধে তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। বহিস্কৃত নেতারা হলেন, চরতীতে মমতাজ উদ্দিন (আনারস), কাঞ্চনায় মিজানুর রহমান মারুফ (আনারস), আমিলাইশে এসএম হারুন (মটর সাইকেল) এইচ এম হানিফ (আনারস) মার্দাসায় রিদুয়ানুল হক (আনারস), কেঁওচিয়ায় আবু ছালেহ শান (মটর সাইকেল), মনির আহমদ (ঘোড়া) মাহবুবুর রহমান (টেবিল ফ্যান) বাজালিয়ায় নুরুল আমিন সিকদার (আনারস) সাতকানিয়া সদরে নেজাম উদ্দিন (আনারস),পুরানগড়ে রাশেদুল করিম চৌধুরী (আনারস)।

সাতকানিয়া আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, প্রতিটি ইউনিয়নে তৃনমূল সভা করে তৃনমুলের মতামত জনপ্রিয়তা যাচাই ও দলের জন্য অবদান বিবেচনায় নিয়ে একটি তালিকা দ্েরলর হাইকমান্ডের কাছে প্রেরণ করেছিলাম। সেই তালিকা অনুযায়ী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেক হাসিনা প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছেন। শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থা নেওয়া অবশ্যই দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের মধ্যে পড়ে। এবং এটি গুরুত্বর দলীয় অপরাধ। তাই উপরোক্ত নেতাদের দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। এবং এসব নেতাদের অতিতের ভূমিকা তদন্ত করে যদি বিএনপি জামায়াতকে অর্থ দেওয়া কিংবা সহিংসতায় ইন্ধন দেওয়ার মত অভিযোগ পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

 

মতামত