টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নিজামীর ফাঁসি: বৃহস্পতিবার হরতালসহ তিন দিনের কর্মসূচি

চট্টগ্রাম, ১১ মে (সিটিজি টাইমস):  জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে ‘পরিকল্পিতভাবে সরকার কর্তৃক ফাঁসিকাষ্ঠে ঝুলিয়ে হত্যা’ করার নিন্দা জানিয়ে বৃহস্পতিবার হরতালসহ ৩ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি।

বুধবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতির মাধ্যমে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির জনাব মকবুল আহমাদ এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ঘোষিত কর্মসূচি হলো- ১১ মে বুধবার সারা দেশে ও প্রবাসে শহীদ মাওলানা নিজামীর মাগফিরাতের জন্য গায়েবানা জানাজা।

১২ মে বৃহস্পতিবার সকাল ৫টা থেকে ১৩ মে শুক্রবার সকাল ৫টা পর্যন্ত দেশব্যাপী ২৪ ঘণ্টার শান্তিপূর্ণ সর্বাত্মক হরতাল।

আগামী ১৩ মে শুক্রবার দেশ ও দেশের জনগণের কল্যাণ এবং বিশেষভাবে শহীদ মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর জন্য দেশব্যাপী দোয়া।

মকবুল আহমেদ বিবৃতিতে বলেন, ‘মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী বাংলাদেশের জনগণের নিকট প্রিয় একটি নাম। বাংলাদেশের জনগণের ভোটাধিকার অর্জন ও বহুদলীয় গণতান্ত্রিক ধারার রাজনীতি চালুর ক্ষেত্রে তার অবদান অবিস্মরণীয়। বাংলাদেশকে একটি পূর্ণাঙ্গ ইসলামী কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য তিনি আজীবন সংগ্রাম করেছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘চারদলীয় জোট সরকারের কৃষি ও শিল্পমন্ত্রী হিসেবে তিনি যে দক্ষতা, সততা স্বচ্ছতার পরিচয় দিয়েছেন তা বাংলাদেশের জনগণ কখনো ভুলবে না।’

বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, ‘ইসলামী আন্দোলনের একজন শীর্ষস্থানীয় নেতা হিসেবে বাংলাদেশের জনগণের নিকট ইসলামের সুমহান দাওয়াত পৌঁছিয়ে দেয়ার জন্য সারা জীবন পরিশ্রম করেছেন। বর্তমান সরকার এ রকম একজন সৎ, আল্লাহভীরু ও দেশপ্রেমিক দক্ষ জাতীয় নেতাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করায় জাতি গভীরভাবে শোকাহত।’

তিনি আরো বলেন, ‘মাওলানা নিজামীর বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ আনা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ বানোয়াট এবং রাষ্ট্রপক্ষ তা প্রমাণ করতে পারেনি। তাকে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার।’

তিনি বিবৃতিতে এহেন প্রতিহিংসাপরায়ণ রাজনীতির তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করে বলেন, ‘জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে মাওলানা নিজামীর সাথে যে নিকৃষ্ট আচরণ ও অবিচার করা হয়েছে তা অত্যন্ত নিন্দনীয়।’

মকবুল আহমেদ বলেন, ‘তিনি রাষ্ট্রপতির নিকট প্রাণ ভিক্ষা চাননি। কারণ প্রাণের মালিক একমাত্র আল্লাহ।’

তিনি বলেন, ‘মাওলানা নিজামীকে হত্যা করে যারা জামায়াতকে নেতৃত্ব শূন্য করার স্বপ্ন দেখছেন, তাদের সে স্বপ্ন কখনো পূরণ হবে না। তার প্রতি ফোঁটা রক্ত এ দেশের ইসলামী ও গণতন্ত্রমনা জনগণকে উজ্জীবিত করবে, ইনশাআল্লাহ।’

বিবৃতিতে তিনি ঘোষিত কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে সফল করার জন্য দলীয় নেতা-কর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে দেশবাসীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

বিবৃতিতে জানানো হয়- হাসপাতাল, অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস ও সংবাদপত্রের সাথে সংশ্লিষ্ট গাড়ি এবং ওষুধের দোকান হরতালের আওতামুক্ত থাকবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত