টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

১১কেভি’র তার ছিড়ে মানিকছড়িতে শতাধিক ঘর-বাড়ী ও প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ক্ষতি!

আবদুল মান্নান
মানিকছড়ি প্রতিনিধি

333চট্টগ্রাম, ০৪  মে (সিটিজি টাইমস):: মানিকছড়ির তিনটহরীস্থ আর্ন্তজাতিক ভাবনা কেন্দ্র সংলগ্ন এলাকায় ১১ কেভি’র বিদ্যুৎ লাইন ছিড়ে ট্রান্সফরমারের লাইনে পড়ায় শতাধিক ঘর-বাড়ী ও শিক্ষা প্রতিষ্টানের বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট যন্ত্রাংশ পুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। দূর্ঘটনার খবর পেয়ে প্রশাসনের কর্মকর্তারা সরজমিন পরিদর্শনসহ ক্ষয়-ক্ষতির পরিমান নির্ণয় শুরু করেছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে যে আনুমানিক ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

গত ৪ মে সকাল পৌঁনে ৮টার দিকে তিনটহরীস্থ আর্ন্তজাতিক ভাবনা কেন্দ্র সংলগ্ন ৫০ কেভি ট্রান্সফরমারের লাইনের ওপর ১১কেভি’র তার ছিড়ে পড়ে আগুন ধরে যায় । এতে সাথে সাথে ওই ট্রান্সফরমারের আওতাধীন ৫৫টি মিটার সংশ্লিষ্ট শতাধিক ঘরের বিদ্যুৎ লাইনে ব্যাপক ক্ষতি হয়। এতে একটি বসত ঘর সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। যার ক্ষয়-ক্ষতি প্রায় ৩ লক্ষ টাকা। এছাড়া বাড়ী-ঘরের মিটার, ফ্যান, কম্পিউটার, ফ্রিজ, মোটর, বাল্বসহ সম্পূর্ণ বিদ্যুৎ লাইন বিপর্যয় ঘটে। ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ম্্রাগ্য মারমা, ইউএনও যুথিকা সরকার, ও.সি মো. শফিকুল ইসলাম, পি.আই.ও মো. আবদুল জব্বার, ইউপি চেয়ারম্যান মো.রফিকুল ইসলাম বাবুল,মো. শফিকুর রহমান ফারুক, আ’লীগ নেতা এম.এ. রাজ্জাক.মো. মাঈন উদ্দীন,মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো.সফিউল আলম চৌধুরী, শিক্ষক মো. আতিউল ইসলামসহ সকল রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দ সরজমিন পরির্শন করেন। সব মিলিয়ে ক্ষয়-ক্ষতি প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে তিনটহরী উচ্চ বিদ্যালয় ও মসজিদ এবং আর্ন্তজাতিক ভাবনা কেন্দ্রে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. আতিউল ইসলাম জানান, বিদ্যুতের এ বিপর্যয়ের ফলে স্কুলের ৪০টি ফ্যান, ২টি মোটর, ৪/৫টি কম্পিউটার, শতাধিক বৈদ্যুতিক বাল্বসহ পুরো ৪টি ভবনের ওয়ারিং জ্বলে গেছে। এভাবে প্রতিটি ঘর-বাড়ীর বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট যন্ত্রাংশগুলো নষ্ট হয়েছে। এ ব্যাপাওে মানিকছড়ি বিদ্যুৎ প্রকৌশলী মো. জিয়া উদ্দীন জানান, ১১ কেভি’র লাইনের তার ছিড়ে পড়ার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে। দ্রæত এসব বাড়ী-ঘরের লাইন আপাতত বিচ্ছিন্ন করে বিদ্যুৎ স্বাভাবিক করার কাজ চলছে।

মতামত