টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

না পাওয়ার বেদনা থেকে বিরুপ মন্তব্য : নাছির

চট্টগ্রাম, ০৩ মে (সিটিজি টাইমস):: না পাওয়ার বা পরাজিত হওয়ার বেদনা মানুষ সহজে ভুলতে পারে না মন্তব্য করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সেই যন্ত্রণা থেকে যদি কেউ বিরুপ মন্তব্য বা বক্তব্য দেন তাতে নাগরিকসেবা বাধাগ্রস্ত হবে না।

মঙ্গলবার (৩ মে) কাজীর দেউড়ি মোড়ে সড়ক বাতিকে এলইডিতে রূপান্তর প্রকল্পের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। সাম্প্রতিক সময়ে তিনবারের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র বাকযুদ্ধ নগরবাসীর দৃষ্টি কেড়েছে। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন সংগঠনটির দায়িত্বশীল নেতারা।

সিটি মেয়র বলেন, ‘আমি নাগরিকসেবা দেওয়ার জন্য স্বপ্রণোদিত হয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়ে জনগণের সেবকের দায়িত্ব পেয়েছি। আমি সেবা দেব, সেবার বিনিময় নেব না-এ প্রত্যয় করেছি। আমার জন্য নির্ধারিত বেতন-ভাতা, সুযোগ-সুবিধা, গাড়ি-বাড়ি, জ্বালানি, আবাসিক সুযোগ-সুবিধা, ব্যক্তিগত কর্মচারীর সুযোগ-সুবিধা কোনোটাই নিচ্ছি না। অতীতে চসিকে এ ধরনের নজির আছে কিনা আমার জানা নেই। তবে নাগরিকসেবার ক্ষেত্রে শতভাগ সততা, নিষ্ঠা ও দায়বদ্ধতা থেকে নির্ধারিত মেয়াদ পর্যন্ত সেবা দিয়ে যাব।’

এসময় তিনি নগরবাসীকে দেয়া ওয়াদা ও ভিশন শতভাগ বাস্তবায়ন করার এবং চট্টগ্রামকে আধুনিক বিশ্বমানের ক্লিন ও গ্রিন সিটিতে রূপান্তরিত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, ‘২০১৬ সালের মধ্যে ডোর টু ডোর আবর্জনা সংগ্রহ কার্যক্রম, ২০১৭ সালের মধ্যে সবুজায়ন এবং তিন বছরের মধ্যে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে পরিপূর্ণ আলোকায়নসহ সব সড়ক, লেন-বাইলেনগুলো পাকা করা হবে।’

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘অতীতের দায় দেনা, অনিয়ম ও দূর্ণীতি থেকে সিটি করপোরেশনকে নিয়ম নীতির মধ্যে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। আশা করা যায় অচীরেই সিটি করপোরেশনে চেইন অব কমান্ড পরিপূর্ণভাবে ফিরে আসবে।’

পরিবেশবান্ধব এলইডি বাতি সংযোজনের মাধ্যমে বিপুল অর্থ সাশ্রয় হবে উল্লেখ করে মেয়র বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নাগরিকদের প্রদেয় ট্যাক্সের বিনিময়ে সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। কাউন্সিলরদের সম্মানী, সুযোগ-সুবিধা, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতাসহ আলোকায়ন, পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম, উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা এ সবই নাগরিকদের ট্যাক্সের বিনিময়ে প্রদান করা হয়।’

সূত্র জানায়, সিটি করপোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নে ৪৯ লাখ টাকার এ প্রকল্পে বিদ্যমান সড়ক বাতিগুলো এলইডি লাইটে রূপান্তর করা হবে। এলইডি পাইলট প্রকল্পের আওতায় নগরীর কাজীর দেউড়ি থেকে লালখান বাজার হয়ে টাইগারপাস পর্যন্ত ১০০টি এলইডি লাইট স্থাপন করা হয়েছে। শহীদ সাইফুদ্দিন খালেদ চৌধুরী সড়কে স্থাপন করা হয়েছে ৭৮ ওয়াটের ৬০টি এবং ১১৪ ওয়াটের ৪০টি এলইডি লাইট। সেখানে আগে ১৫০ ওয়াটের সোডিয়াম বাতি ছিল।

পানি ও বিদ্যুৎবিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ জাবেদের সভাপতিত্বে ও বিদ্যুৎ উপ-বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী ঝুলন কান্তি দাশের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দিন, মোরশেদ আলম, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. মাহফুজুল হক।

উল্লেখ্য, নগরীর লালদীঘি ময়দানে মে দিবসের এক সমাবেশে মহিউদ্দিন চৌধুরী মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের বিরুদ্ধে কর বাড়ানোর সমালোচনা ও নগরের উন্নয়ন করতে না পারার অভিযোগ এনে তাকে ‘হুংকার বন্ধ করে সংযত হয়ে কথা বলার’ আহ্বান জানান।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত