টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চন্দনাইশে উঠানের খুঁড়ে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার: স্বামী-সতীন গ্রেফতার

চট্টগ্রাম, ২৫  এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) :  যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতনের পর হত্যা করে গর্তে লাশ গুম করেছিল এক পাষ- স্বামী। এ ঘটনার এক মাস পর সতীনের বাড়ির উঠানের গর্ত থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত গৃহবধূর নাম ছকিনা বেগম।

চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার জাফরাবাদ এলাকায় ঘটেছে। এ ঘটনায় জড়িত নিহত ছকিনার সতীন জুনু আক্তার ও স্বামী মনছফ আলীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

চন্দনাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গাজী সাখাওয়াত হোসেন বলেন, হত্যার ২-৩ দিন পর দ্বিতীয় স্ত্রীর ছোট বোন রিনা আক্তারকে মনছফ জানায়- ছকিনাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কোন আত্মীয়ের বাসায় গিয়েছে কিনা খোঁজ খবর নিতে বলেন।

এরপর শ্যালিকা তখনই দুলাভাইকে সন্দেহ করেন এবং ৩১ মার্চ থানায় গিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন রিনা আক্তার। ওই মামলায় মোবাইল ট্র্যাকিং করে শনিবার হাটহাজারী থেকে ছকিনার সতীন জুনু আক্তারকে গ্রেফতার করা হয় এবং তার দেয়া তর্থের ভিত্তিতে আজ রোববার দুপুরে বাড়ির সামনের একটি গর্ত থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়।

ওসি আরো জানান, গত ২৫ মার্চ বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে বড় বউয়ের বাড়িতে যায় সিএনজি ট্যাক্সি চালক মনছফ আলী। ওইদিন রাতে যৌতুকের বিষয় নিয়ে ছকিনার সঙ্গে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে রাত ২টায় শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় ছকিনাকে। এরপর ঘরের সামনের উঠানে গর্ত করে লাশ গুম করা হয়।

মতামত