টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

এক ভিজিটিং কার্ডেই ১৬ পদবি

Vcচট্টগ্রাম, ২৪  এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) :ধরুন চলতি পথে ব্যস্ততার মাঝে আপনার পরিচিত কারো সঙ্গে দেখা হয়ে গেল। কিছুটা কুশল বিনিময়। এরপর… ভবিষ্যত যোগাযোগ ঠিক রাখার জন্য দরকার একে অপরের মোবাইল নম্বর, বাসার ঠিকানা কিংবা প্রাতিষ্ঠানিক কোনো পরিচয়। আপনি এগিয়ে দিলেন একটি ভিজিটিং কার্ড। নিশ্চয় একটা ভিজিটিং কার্ডে এক/দুইটা পদবি (ডেজিগনেশন) থাকবে। যদি এক ভিজিটিং কার্ডে ১৬টি পদবি থাকে তাহলে নিশ্চয় অবাক লাগার কথা।

এমনই এক ভিজিটিং কার্ড ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। নিজের ১৬টি পদবি উল্লেখ করে ভিজিটিং কার্ড ছাপিয়েছেন সিলেটের লাহিন নাহিয়ান তালুকদার।

চাররঙা ভিজিটিং কার্ডের বামপাশে রয়েছে ১৬টি পদবি। অপরপাশে মোবাইল নম্বর ও স্থায়ী ঠিকানা।

ভিজিটিং কার্ডে উল্লেখ রয়েছে তিনি একাধারে কবি, সাহিত্যিক, ধারাভাষ্যকার, উপস্থাপক, ছাত্রলীগ নেতা, মানবাধিকার কর্মী, সালিশ ব্যক্তিত্ব, সমাজসেবক, ক্রীড়া সংগঠক, ক্রীড়ামোদি, পরিবেশবাদী, সংগঠক, শিক্ষানুরাগী, সুশীল ব্যক্তিত্ব, বক্তব্য বিশারদ ও সংস্কৃতিমনা…।

নাহিয়ান বলেন, ‘আমি একাধিক প্রতিভার অধিকারী। এটা গড গিফ্টেড।’

কবিতা বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি হাজার হাজার কবিতা লিখেছি। আমার কবিতা বাংলা সাহিত্যের বিরাট নিদর্শন। যারা আমার কবিতা পড়েছেন তারা প্রশংসা করেছেন।’

কোনো বই প্রকাশ হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না।’

রাজনৈতিক আদর্শ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগ করি। ইউনিয়ন, মহানগর, উপজেলা ছাত্রলীগের সবখানে আমার পদ আছে।’

এই ফাঁকে তিনি জানালেন সিলেটে ৫১ জন ধারা ভাষ্যকার নিয়ে একটি অ্যাসোসিয়েশন গঠন করেছেন। তিনি এই অ্যাসাসিয়েশনের সভাপতিও।

কেবল ১৬টি পদবিতে সন্তুষ্ট নন নাহিয়ান। জনগণের সেবা করবেন বলে তিনি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও দাঁড়িয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মেম্বর পদে। আগামী ৭ মে তার ইউপিতে ভোটগ্রহণ হবে।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আশা করি জয়ী হব। পোস্টারে তিনটি কবিতা ছাপিয়েছি। ভোটাররা আমার কবিতা পড়ে খুশি হয়েছেন।’

ফেসবুকে ভিজিটিং কার্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কে বা কারা আমার ভিজিটিং কার্ড ফেসবুকে ছেড়ে দিয়েছে। লোকে আমাকে কল দিয়ে এখন গালাগালি করছে। বাজে বাজে কথা বলছে। আমি মনে দুঃখ পেয়েছি।’

কারা এমন কাজ করতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এরা নিশ্চয় জামায়াত-শিবির। আর আমি প্রগতিশীল মানুষ।’-পরিবর্তন

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত