টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

পাঁচদিনের রিমান্ডে শফিক রেহমান

bnpচট্টগ্রাম, ১৬ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) ::  বিশিষ্ট সাংবাদিক ও যায়যায়দিন পত্রিকার সাবেক সম্পাদক শফিক রেহমানের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির সহকারী কমিশনার হাসান আরাফাত শনিবার দুপুরে সাত দিন রিমান্ডে চেয়ে আবেদন করেন।

অন্যদিকে অশীতিপর এই সাংবাদিকের জামিনের আবেদন করেন বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের নেতা সানাউল্লাহ মিয়াসহ অন্যরা।

শুনানি নিয়ে মহানগর হাকিম মাজহারুল ইসলাম জামিনের আবেদন নাকচ করেপাঁচ দিন রিমান্ডের আদেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যা পরিকল্পনা মামলায় তাকে রিমান্ডে দেয়া হলো।

শফিক রেহমানকে শনিবার সকালে তার ইস্কাটনের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়া রেহমান জানান, বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেল থেকে সাক্ষাৎকার নেওয়ার কথা বলে কয়েকজন বাসায় ঢোকেন। শফিক রেহমান সাক্ষাৎকার দিচ্ছেন ভেবে তিনি (তালেয়া রেহমান) বাসার ভেতরে ছিলেন। পরে বাসার বাবুর্চি জানান, শফিক রেহমানকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাকে নেওয়ার সময় তিনি বাধা দেন। এ সময় তাকে (বাবুর্চিকে) মারধর করে চুপ থাকতে বলা হয়।

এরপর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (দক্ষিণ) উপকমিশনার মাশরুকুর রহমান জানান, গত বছর পল্টন থানায় দায়েরকৃত একটি মামলায় শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (মিডিয়া) মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘২০১৫ সালের অাগস্ট মাসের পল্টন থানার একটি রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

উপকমিশনার মশরুকুর রহমান খালেদ জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে ও তার তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টার ঘটনায় গত বছর পল্টন থানার একটি মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের দাবি, প্রধানমন্ত্রীর ছেলেকে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টার ওই মামলায় শফিক রেহমানের সংশ্লিষ্টতা পাওয়ার পরই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শফিক রেহমান নানা সংবাদ মাধ্যমে কাজ করলেও গত শতকের ৮০ এর দশকে সাপ্তাহিক যায়যায়দিন সম্পাদনার মধ্য দিয়ে ব্যাপক পরিচিতি পান।

তখন সামরিক শাসক এইচ এম এরশাদের রোষানলে পড়ে তাকে বাংলাদেশ ছাড়তে হয়েছিল। এরশাদের পতনের পর ফের বাংলাদেশে ফেরেন বিবিসিতে কাজ করে আসা এই সাংবাদিক।

সেনাসমর্থিত সরকারের বিরুদ্ধে লেখালেখির জন্য ২০০৮ সালে তিনি যায়যায়দিন-এর সম্পাদক পদটি হারান।

এছাড়া, তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন-এ ‘লাল গোলাপ’ নামক একটি টক শো উপস্থাপনা করতেন যা বর্তমানে বাংলাভিশনে প্রচার হয়। এছাড়া, তিনি দৈনিক নয়াদিগন্তে কলাম লেখেন এবং ‘মৌচাকে ঢিল’ নামক একটি ম্যাগাজিন সম্পাদনা করেন। তিনি বিএনপিপন্থি থিংক ট্যাঙ্ক গ্রুপ-২০০৯ বা জি-নাইন এর সঙ্গে যুক্ত।

প্রখ্যাত অধ্যাপক সাইদুর রহমানের ছেলে শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়ার প্রতিষ্ঠান ডেমোক্রেসি ওয়াচ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ সংস্থা হিসেবে সক্রিয়।

মতামত