টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫ ভবন, আহত ৪৬

bচট্টগ্রাম, ১৩ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) ::   চট্টগ্রামে ভূমিকম্পে পাঁচ ভবন হেলে পড়েছে। এ সময় ইপিজেডে একটি পোশাক কারখানার কর্মীরা দ্রুত নামতে গিয়ে আহত হন ৩০ জন।

এছাড়া, বায়েজিদ থানার টেনারী বটতল এলাকায় সাদ মুছা গার্মেন্টস থেকে হুডুহুড়ি করে নামতে গিয়ে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে ৯ জনকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা সবাই নারী শ্রমিক।

বুধবার রাত ৭টা ৫৬ মিনিটে চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী, পাহাড়তলী, হালিশহর এবং চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার এই বহুতল ভবনগুলো হেলে পড়ে।

তবে এসব ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

এছাড়া নগরীর কলসী দিঘীর পাড় এলাকায় দেওয়াল চাপায় এক পথচারী আহত হয়েছেন। তবে তার পরিচয় পাওয়া যায়নি।

কোতোয়ালী থানার ওসি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ভূমিকম্পে চট্টগ্রামের রিয়াজউদ্দিন বাজারের দারুল ফজল মার্কেটের পেছনের একটি ভবন সামান্য হেলে পড়েছে। এছাড়া নিউমার্কেট এলাকার আলমাস ভবনও সামান্য হেলে পড়েছে। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।’

চান্দগাঁও থানার ওসি সৈয়দ আবু মো. শাহজাহান কবির বলেন, ‘চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার জি-ব্লকের সিড়ির নিকেতন নামে একটি পাঁচতলা ভবন ভূমিকম্পে হেলে যায়। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহত হয়নি।’

আয়েশা বেগম নামে এক গৃহিনী ফোনে জানান, হালিশহরের বি-ব্লকে একটি ভবন হেলে পড়েছে। আমরা সবাই নেমে যাওয়ায় কেউ আহত হয়নি। তবে আতংকে আছি।

ইপিজেড থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এক গার্মেন্টস কারখানায় হুড়োহুড়ি করে নামতে গিয়ে ৩০ জন পোশাক শ্রমিক আহত হন। তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

পাহাড়তলী থানার ওসি রঞ্জিত কুমার জানান, সরাইপাড়া এলাকায় একটি পাঁচতলা ভবন সামান্য হেলে পড়ে, তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

আগ্রাবাদ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের সিনিয়র অফিসার আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘ভূমিকম্পের কম্পনটা জোরালো হলেও এখনো কোথাও উল্লেখযোগ্য কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। তবে নগরীর কলসী দিঘীর পাড় এলাকায় দেওয়াল চাপায় এক পথচারী আহত হয়েছেন। তার পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।’

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রামে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকায় রয়েছে ৬০টি ভবন। বিশেষজ্ঞদের মতে, বড় ধরনের ভূমিকম্প হলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এসব ভবন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত