টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে বৈশাখের যত আয়োজন

CTGচট্টগ্রাম, ১৩ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) :: আজ বুধবার চৈত্রসংক্রান্তি। বাংলা ১৪২২ সালের শেষ দিন। কাল পহেলা বৈশাখ। বাংলা নতুন বছরকে বরণ আর পুরাতন বছরকে বিদায় দিতে চট্টগ্রামে শুরু হয়েছে দুই দিনের নানা কর্মসূচীর।

কবির ভাষায়-‘জীর্ণ পুরাতন যাক ভেসে যাক, মুছে যাক গ্লানি…।’ মহাকালের অতল গর্ভে কাল হারিয়ে যাবে আরও একটি বাংলা বছর।

বুধবার সূর্য অস্ত যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিদায়ী বছরের সমস্ত চাওয়া পাওয়া, হতাশা ও অপ্রাপ্তির সাঙ্গ হবে। তার আগেই ‘চৈত্রসংক্রান্তি’ উদযাপনে নগরীজুড়ে বিভিন্ন সংগঠন হাতে নিয়েছে বর্ষ বিদায় ও বর্ষ বরণের বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান।

বুধবার বিকেলে ও বৃহস্পতিবার ভোর থেকে সারাদিন নগরীর ডিসি হিল, সিআরবি, শিল্পকলা একাডেমি ও শহীদ মিনার চত্বরসহ বিভিন্ন স্থানে ‘চৈত্রসংক্রান্তি’ উদযাপন করা হবে।

এদিকে বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণে যে কোন ধরনের বিড়ম্বণা এবং অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নগর জুড়ে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন।

ডিসিহিল, সম্মিলিত পহেলা বৈশাখ উদযাপন পরিষদ :
নগরীর ডিসি হিলে দুদিনব্যাপী বর্ষ বিদায় ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে সম্মিলিত পহেলা বৈশাখ উদযাপন পরিষদ। চট্টগ্রামে বর্ষবিদায় ও বরণের সবচেয়ে বড় আয়োজন এটি। নগরবাসীই শুধু নয়, দূরদূরান্ত থেকেও মানুষ আসে এ আয়োজনে শরিক হতে। আজ চৈত্র সংক্রান্তির দিন থেকে দুদিনব্যাপী এ আয়োজন শুরু হচ্ছে।

বর্ষ বিদায়ের অনুষ্ঠান ডিসি হিল প্রাঙ্গণে শুরু হবে আজ বিকাল চারটায়। এরপর সাহিত্যিক হরিশংকর জলদাস, শিল্পী শীলা মোমেন এবং নাট্যমঞ্চে আলো ছায়ার কারিগর তপন ভট্টাচার্যকে সম্মাননা প্রদান করা হবে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের বিভিন্ন সংগঠন অংশ নিচ্ছে। এছাড়া একক আবৃত্তি পরিবেশন করবেন স্বনামধন্য শিল্পীরা।

সিআরবি শিরীষ তলা:
নববর্ষ উদযাপন পরিষদ নগরীর সিআরবি’র শিরীষ তলায় আয়োজন করেছে বর্ষবরণ উৎসবের। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে সাতটায় শুরু হবে আয়োজন। এরপর বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এর মধ্যেই দলীয় নৃত্য, একক নৃত্য, কবিতা পাঠ, চিরায়ত গান, মাইজভান্ডারী গান পরিবেশিত হবে। মোট ৪৫টি সংগঠন অংশগ্রহণ করবে এ আয়োজনে। ১০ থেকে ১৫ জন শিল্পী পরিবেশন করবেন একক সংগীত। এছাড়া দুপুর আড়াইটায় মাঠের অন্যপাশে অনুষ্ঠিত হবে ঐতিহ্যবাহী বলীখেলা।

শিল্পকলা একাডেমি :
বাংলার চিরায়ত ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় এবারও জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে বর্ষ বিদায় ও বর্ষ বরণের বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। বুধবার বিকেল ৫টায় একাডেমি প্রাঙ্গন থেকে শুরু হবে লোকজ সাজে সজ্জিত শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রার পর ঢোলবাদনের মধ্য দিয়ে উদ্বোধন হবে বর্ষবিদায় অনুষ্ঠান। এরপর শুরু হবে সাংস্কৃতিক আয়োজন। একাডেমির সংগীত দলের সমবেত সংগীত, নৃত্যদলের দলীয় নৃত্য। একক সংগীত পরিবেশন করবেন চট্টগ্রামের বিশিষ্ট সংগীতশিল্পীরা।

শহীদ মিনার চত্বর :
‘সকল অপশক্তি ডিঙিয়ে উন্মীলিত হোক বাংলাদেশ ও বাঙালি সত্তা’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে বর্ষবরণ পরিষদের উদ্যোগে প্রতিবারের মত এবারও শহীদ মিনার চত্বরে আয়োজন করা হয়েছে দুই দিনব্যাপী বর্ষবরণ ও বর্ষবিদায়ের উৎসব।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার:
বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণের আয়োজনকে ঘিরে পুরো নগর জুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করে পুলিশ ও র‌্যাব। নগরীতে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে। বুধবার দুপুর ২টা থেকে আয়োজনস্থল ঘিরে দায়িত্ব পালন শুরু করেছে পুলিশ ও র‌্যাবের বিশেষ নিরাপত্তা টিম।

বাংলা বর্ষবিদায় ও নববর্ষ বরণ উপলক্ষে নগরীর ডিসি হিল, সিআরবি, বাওয়া স্কুল প্রাঙ্গন, শিল্পকলা একাডেমি, পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত সহ জনসমাগম হবে এমন বেশ কয়েকটি এলাকাকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সাজিয়েছে তাদের সার্বিক নিরাপত্তা পরিকল্পনা।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন, অর্থ ও ট্রাফিক) ডিআইজি একেএম শহীদুর রহমান জানান, বৈশাখী উৎসবের আয়োজকদের সঙ্গে পরামর্শ করে এবং আমাদের নিজস্ব বিবেচনা অনুযায়ী সার্বিক নিরাপত্তা পরিকল্পনা করা হয়েছে। আশা করছি সুন্দরভাবেই বৈশাখের সব আয়োজিন সমাপ্ত হবে।

নগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে নগরীতে এবার প্রায় এক হাজার দু’শ অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। এদের মধ্যে আছেন সাদা পোশাকধারী ও নির্দিষ্ট পোশাকধারী পুলিশ এবং আর্মড ব্যাটেলিয়নের সদস্যরা। এর বাইরে নিয়মিত এবং থানা ও ফাঁড়ির সদস্যরাসহ ৯২টি পয়েন্টে ২ হাজার ২৫০ জন পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। নগরজুড়ে ৩২টি স্থানে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করা হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত