টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে হেপাটাইটিস বি ভ্যাকসিনেও ভেজাল

cচট্টগ্রাম, ১৫ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) : চট্টগ্রাম নগরের অলিগলিজুড়ে দেখা মিলবে হেপাটাইটিস বি ভাইরাস ও এটা থেকে রক্ষার পাওয়ার উপায় নিয়ে নানা রকম প্রচার-প্রচারণা। চট্টগ্রামে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) এ ভাইরাসের টিকা সরবরাহ করছে ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায়। আবার ক্ষেত্রবিশেষে বেশি টাকাও নেওয়া হচ্ছে গ্রাহকদের কাছ থেকে। 

তবে এসব টিকা আসলে কতটা নিরাপদ, তা জানে না কেউ। মারাত্মক রোগ থেকে রক্ষা পেতে হয়তো পুরো পরিবারই গ্রহণ করছে রোগ প্রতিরোধকারী ভ্যাকসিনের নামে এ অনিরাপদ ওষুধ।

সম্প্রতি এসব ভেজাল টিকা সরবরাহকারীকে ধরতে অভিযান চালান জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গত সোমবার চালানো এক অভিযানে দেখা যায়, আর্ত চেতনা মানবিক উন্নয়ন সংস্থা নামে একটি এনজিওর চার কর্মীকে অর্থদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাঁরা সংস্থাটিতে খণ্ডকালীন (পার্টটাইম) চাকরি করেন। নগরীর নন্দনকানন এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাঁদের চ্যালেঞ্জ করলে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তাঁরা।

নদী নামের এক এনজিওকর্মী বলেন, ‘আমি একটা চাকরি করতাম, সেটা অসুস্থতার জন্য ছেড়ে দিয়েছি। প্রোগ্রাম হলে অন কলে ডাকে, আসি। প্রতিষ্ঠানটির নাম আর্ত চেতনা উন্নয়ন সংস্থা।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা জানি যে ওষুধটা পাল্টে ফেলছে। যে ওষুধটা ভুল পাইছিল, সেটা দেওয়া হচ্ছে না, ইনসেপটা কোম্পানিরটা দেওয়া হচ্ছে, এটুকুই জানি। আর জানি না।’

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমিন জানান, ‘সানভেকস’ নামে একটি টিকা নিরীহ লোকজনকে পুশ করছে এনজিওকর্মীরা। এ টিকা নিয়ে চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টরা কেউ অবগত নন।

রুহুল আমিন বলেন, ‘ভ্যাকসিনের অভিযানে আমার মনে হয়েছে যে যাঁরা আসলে এতগুলো মানুষকে ভ্যাকসিন দিচ্ছে গোলাম রসুল মার্কেটের ওখানে, প্রায় কয়েক হাজার কর্মচারী হবে, যাঁরা ভ্যাকসিন দিচ্ছেন। আমার কাছে মনে হয়েছে যে যেহেতু ওষুধ নিয়ে একটা অনিয়ম চলছে তো ভ্যাকসিনটা ঠিকমতো দেওয়া হচ্ছে কি না, আমার কাছে সন্দেহ হয়। যাওয়ার পর তাদের চার্জ করি, তোমাদের কাছে যে ভ্যাকসিনটা আছে সেটা ঠিক কি না বলো। আমার সঙ্গে ঔষধ প্রশাসনের লোক ছিল, সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ছিলেন। তাঁরা বললেন, এ ধরনের ভ্যাকসিনের অস্তিত্ব কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না।’

ঔষধ প্রশাসনের অনুমতি তো না-ই, চিকিৎসকরাও বলতে পারছেন না যে এ ধরনের ভ্যাকসিন আছে কি না। ওষুধের গায়ে লেখা আছে কানাডা। কিন্তু কানাডায়ও এ নামের কোনো ভ্যাকসিন নাই।

টিকাদান কর্মসূচি চলাকালে একজন চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও কাউকে পাওয়া যায়নি।-এনটিভি

মতামত