টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে দুর্ধর্ষ ডাকাতি নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুট

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ০৭ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) ::  মিরসরাই উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের দুইটি বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (৬ এপ্রিল) গভীর রাতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এসময় ডাকাতদল ফয়েজ চেয়ারম্যান বাড়ী ও সাহাবউদ্দিন ম্যানশন থেকে নগদ ২ লাখ ১৫ হাজার টাকা, সাড়ে বিশ ভরি স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়। বাধা দিতে গিয়ে ডাকাতদলের চুরির কোপে সাহাবউদ্দিন (৬০) নামে এক বৃদ্ধা আহত হয়।

পূর্বদূর্গাপুর গ্রামের ফয়েজ চেয়ারম্যান বাড়ীর মালিক মো: সুমন জানান, বুধবার রাত আনুমানিক ৩টা ২০ মিনিটে ১২ থেকে ১৩ জনের স্বশস্ত্র ডাকাতদল আমাদের গেইটের তালা ভেঙ্গে বাড়িতে প্রবেশ করে। পরবর্তীতে তারা ঘরের কলাপসিবল গেইটের তালা ও ডিবি দরজার লক ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে আমাকেও আমার বোনকে জিম্মি করে ২টি স্টিলের আলমারি ও ২টি অভারড্রয়ার ভেঙ্গে নগদ ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা, সাড়ে ৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৭টি মোবাইল সেট, ব্যাংকের চেকবই ও মূল্যবান কাগজপত্র নিয়ে চলে যায়। উত্তর দুর্গাপুর গ্রামের সাহাবউদ্দিন ম্যানশনের মালিক সাহাব উদ্দিন মেস্ত্রী বলেন, রাত ২টায় ডাকাতদল বাড়ীর বাইরে দেওয়া সীমানা প্রাচীর টপকে আমার ঘরে প্রবেশ করে। পরবর্তীতে তারা ঘরের কলাপসিবল গেইটের তালা ও ডিবি দরজার লক ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। ডাকাতদের বাধা দিতে গেলে তারা আমা মুখের উপর চুরি দিয়ে কুপিয়ে দেয়। চুরির কোপে আমার মুখ কেটে যায়। ডাকাতরা আমার মেয়ের শিশু সন্তানকে গুলি করে দিবে বলে ঘরের সবাইকে জিম্মি করে ফেলে। তারা ২টি স্টিলের আলমারি ও ১টি কাঠের চৌকিস ভেঙ্গে নগদ ৮০ হাজার টাকা, ১৪ ভরি স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি দু’টি পরিদর্শন করেন দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান সাইফুল ইসলাম খোকা, নবাগত চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান বিপ্লব, জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক বিপুল দেবনাথ, সেকান্দার মোল্লা, মিজান, ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন, শেখ মো: আবুল হোসেন রাইটার।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম খোকা বলেন, ২টি বাড়িতে ডাকাতি হওয়ার খবর শুনে আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও জোরারগঞ্জ থানার ওসিকে বিষয়টি অবহিত করেছি। গত ৮-১০ বছর দুর্গাপুর ইউনিয়নে ডাকাতির কোন ঘটনা ঘটেনি। সম্প্রতি সময়ে এলাকায় ডাকাতির ঘটনা চরম ভাবে বেড়ে গেছে। আমি দু’টি বাড়িতে ডাকাতির সময় লুট হওয়া টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল সেট উদ্ধারের পাশাপাশি ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি দাবী জানাচ্ছি।

জোরারগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিপুল দেবনাথ বলেন, ডাকাতি হওয়া দু’টি বাড়ি আমরা পরিদর্শন করেছি। ডাকাতি হওয়া টাকা, স্বর্ণ উদ্ধার ও ডাকাতদের গ্রেপ্তারের চেষ্ঠা চলছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত