টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ইজতেমা আয়োজন জাতির পিতার অবদান

চট্টগ্রাম, ২২মার্চ (সিটিজি টাইমস) :  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামের জন্য অনেক কিছু করেছেন যা বলে শেষ করা যাবে না। মুসলমানরা যাতে অল্প খরচে হজ পালন করার জন্য সৌদি আরব যেতে পারেন সে জন্য বঙ্গবন্ধু একটি জাহাজও ক্রয় করেছিলেন। পরে জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসার পর সেটিকে প্রমোদতরী করেন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ধর্ম চর্চার জন্য বঙ্গবন্ধুই ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষির্কী উপলক্ষে মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা খুব কম সময়ই ক্ষমতায় থেকেছেন। এই স্বল্প সময় তিনি দেশ থেকে মদ-জুয়াসহ সকল গর্হিত বিষয়গুলো বিতাড়নসহ ইসলাম প্রচারে কাজ করে গেছেন।

তিনি বলেন, জাতির পিতা একজন সত্যিকারের মুসলমান ছিলেন। ইসলামের কল্যাণে তিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠাসহ নানা কার্যক্রম পরিচালনা করেন। পাশাপাশি সকল ধর্মের মানুষ যেন এদেশে সম্প্রীতির সঙ্গে বসবাস করতে পারে, সে ব্যবস্থাও করেন। তিনি দেশের দরিদ্র, ভুখা-নাঙ্গা মানুষের কল্যাণে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশে তা অনুষ্ঠানের বিষয়টি নিশ্চিত করে গেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের পরে বাংলাদেশে ১৯টি ক্যু হয়েছে। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগ সরকার পুনরায় জাতির পিতার আদর্শে ইসলামকে সমুন্নত করতে সচেষ্ট হয়। আমরা মুসলমানদের জন্য শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকিং ব্যবস্থার প্রচলন করেছি।

তিনি বলেন, বায়তুল মোকাররম মসজিদ আমাদের জাতীয় মসজিদ। এ মসজিদের উন্নয়নে আমরা প্রকল্প নেই। সৌন্দর্য্য বর্ধন ও অ্যাভিনিউ নির্মাণ করি।

শেখ হাসিনা বলেন, মাদ্রাসা শিক্ষাকে বঙ্গবন্ধু গুরুত্ব দিয়েছেন। সেজন্য তিনি বোর্ড তৈরি করে দিয়েছেন। ধর্মীয় শিক্ষা ছাড়া কোনো শিক্ষা সমৃদ্ধ হয় না। সেটা শিশুকাল থেকে দিতে হয়। তিনি এ শিক্ষা প্রসারে ভাতার ব্যবস্থা করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতার আদর্শে পরিচালিত আমাদের সরকার দেশ থেকে দারিদ্র্য বিতাড়নে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা ব্যাপক হারে গৃহহীনদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ নিয়েছি। ইসলাম ধর্ম শিক্ষা দেয়, প্রয়োজনে নিজের খাবার দরিদ্রকে দিতে হবে। এ শিক্ষা থেকেই আমরা দেশকে আরো সামনে বাড়াতে কাজ করছি।

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ইসলাম প্রচারের পাশাপাশি দেশে যেন জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া না দেয়, সে জন্য কাজ করে যেতে হবে।

মতামত