টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চসিকের ৬ ওয়ার্ডে ডোর-টু-ডোর বর্জ্য সংগ্রহে পাইলট প্রকল্প

চট্টগ্রাম, ১৫ মার্চ (সিটিজি টাইমস) :: চট্টগ্রাম নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনাকে আধুনিক, পরিবেশবান্ধব ও স্বাস্থ্যসম্মত করার লক্ষ্যে ছয়টি ওয়ার্ডে ডোর-টু-ডোর বর্জ্য সংগ্রহ ও অপসারণের প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) অষ্টম সাধারণ সভায়।

মঙ্গলবার দুপুরে কেবি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

প্রস্তাব অনুযায়ী চলমান রাতে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমের সাথে ডোর-টু-ডোর পদ্ধতিতে প্রাথমিক পর্যায়ে ৭, ৮, ২২, ২৩, ৩১ ও ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডকে পাইলট প্রকল্পের আওতায় আনা হবে। এরপর ছয় মাসের মধ্যে ৪১টি ওয়ার্ডকে এ কর্মসূচিভুক্ত করা হবে।

মেয়র বলেন, নগরীর পরিবেশ সুরক্ষার স্বার্থে ডোর-টু-ডোর আবর্জনা সংগ্রহের কাজে ব্যবহারের জন্য বিন ও ভ্যানগাড়ি এবং জনবল প্রয়োজন হবে। নগরীর করপোরেট হাউস ও সংস্থাগুলো তাদের প্রতিষ্ঠানের নামে ভ্যানগাড়ি ও বিন সরবরাহ করলে সিটি করপোরেশন স্বাগত জানাবে। নগরীকে আলোকিত করার প্রয়াস চলছে। এ ক্ষেত্রে বিদেশি অনেক সংস্থা সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছে। বর্জ্য থেকে গ্যাস, বিদ্যুৎ ও সার তৈরি করাসহ এলইডি লাইটিংয়ের প্রস্তাবগুলো বিবেচনায় রাখা হয়েছে।

মেয়র সভাকে অবহিত করেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ এবং সংশ্লিষ্টদের অনুমোদনক্রমে চসিকের বকেয়া পরিশোধ এবং উন্নয়ন কার্যক্রমের জন্য ৫০০ কোটি টাকা থোক বরাদ্দ পাওয়া যাবে।

সভার শুরুতে প্রধান প্রকৌশলী নগরীতে চলমান খাল খনন, নালা-নর্দমার মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন, সড়ক উন্নয়ন, প্রতিরোধ দেয়াল নির্মাণসহ উন্নয়ন কার্যক্রমের বিশদ চিত্র তুলে ধরেন। এ ছাড়াও সহকারী প্রকৌশলী মো. মঞ্জুরুল হক তালুকদার জাপানে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ওপর তার অভিজ্ঞতার একটি সচিত্র প্রতিবেদন তুলে ধরেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত