টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছি: সংবাদ সম্মেলনে আতিউর রহমান

atiur-rahmannnn_চট্টগ্রাম, ১৫ মার্চ (সিটিজি টাইমস) :: যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ৮শ কোটি টাকা চুরির ঘটনায় গভর্নরের পদ থেকে পদত্যাগ করা ড. আতিউর রহমান বলছেন তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছেন।

মঙ্গলবার বিকেলে গুলশানে তার সরকারি বাসভবন ‘গর্ভনর হাউজ’-এ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে বাংলাদেশের রিজার্ভের বিপুল পরিমাণ অর্থ চুরি গেলেও বিষয়টি ধামা চাপা দিয়ে রাখে বাংলাদেশে ব্যাংক। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা শুরু হয়। গভর্নরের সঙ্গে অর্থমন্ত্রীরও পদত্যাগ দাবি করে বিএনপি।

তবে রিজার্ভ চুরির ঘটনায় সারাদেশে যখন তোলপাড় চলছিল আন্তঃরাষ্ট্রীয় এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সে সময় ভারতে ছিলেন আতিউর রহমান। গতকাল দেশে ফেরেন তিনি।

তারআগেই প্রধানমন্ত্রীর কাছে গভর্নরের বিষয়ে নালিশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত; রিজার্ভ চুরির ঘটনা গোপন রাখায় যিনি ভীষন চটেছিলেন গর্ভনরের উপর।

এরপর সোমবার অর্থমন্ত্রী জানান, মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জরুরি সংবাদ সম্মেলনে আসবেন তিনি। অন্যদিকে বিকেল ৪টায় ডাকা হয় বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ সভা। অবশ্য রাতেই ওই সভা স্থগিত করা হয়। আর মঙ্গলবার সকালে গভর্নরের পদত্যাগের বিষয়টি সামনে আসার পর মুহিতও তার সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করেন।

রিজার্ভ চুরির বিষয়টি সাইবার অ্যাটাক ছিল জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে ড. আতিউর রহমান বলেন, চুরির বিষয়টি প্রথমে বুঝিনি, পরে সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়েছি।

একইসঙ্গে তিনি একথাও বলেন, নৈতিক দায়িত্ব নিয়ে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছি।

উল্লেখ্য, ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে সঞ্চিত বাংলাদেশে ব্যাংকের রিজার্ভের টাকা থেকে ৮শ কোটি টাকা হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে সরিয়ে নেয়া হয়। বাংলাদেশ ব্যাংক বিষয়টি ধামা চাপা দিয়ে রাখার চেষ্টা করলেও ফিলিপাইনের একটি সংবাদ মাধ্যমে তা ফাঁস করে দেয়। মূলত ফিলিপাইনের কয়েকটি ক্যাসিনোর মাধ্যমে এ টাকা পাচার করা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বলছে, চুরি যাওয়া অর্থের কিছু উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ফিলিপাইনের অর্থ পাচারবিরোধী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাজ করে বাকি অর্থ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে আতিউর রহমানের পদত্যাগের পর বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন গভর্নরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সাবেক অর্থ সচিব ও সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান ফজলে কবিরকে। তিনি বর্তমানে ওয়াশিংটনে রয়েছেন। ১৮ মার্চ দেশে ফেরার কথা রয়েছে তার। এরপরই তিনি দায়িত্ব নেবেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত