টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে আগ্রহী ‘রিলায়েন্স’

চট্টগ্রাম, ১২ মার্চ (সিটিজি টাইমস) :: চট্টগ্রামের গহিরায় ৭৫০ মেগাওয়াটের দুইটি গ্যাস ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য জমি পেতে বাংলাদেশ ইকনোমিক জোন অথরিটির (বেজা) কাছে প্রস্তাব দিয়েছে ভারতীয় বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান ‘রিলায়েন্স’।

‘বেজা’র কাছে প্রতিষ্ঠানটির আগ্রহের কথা ইতোমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন ওই কোম্পানির গ্যাস প্রকল্পের ভাইস চেয়ারম্যান ও বিজনেস হেড, সামির কুমার গুপ্তা। আর প্রস্তাবটিও সরকারের বিবেচনায় রয়েছে বলে জানিয়েছে বেজা কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশের একটি বেসরকারি টেলিভিশনের খবরে এসব তথ্য বলা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে  বলা হয়, নানা আলোচনার পর, ২০১৬ সালের শুরুতে বাংলাদেশকে বিদ্যুৎ খাতে তিন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব দেয় ভারতীয় বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান রিলায়েন্স। আমদানি করা এলএনজি আর বাংলাদেশের গ্যাস ব্যবহার করে তিন ধাপে তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের এক মহা পরিকল্পনার ঘোষনা আসে এই ভারতীয় প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে।

সর্বশেষ ৭৫০ মেগাওয়াটের দুইটি গ্যাস ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল চট্টগ্রামের গহিরায় জমি চেয়েছে বেজার কাছে। যদিও চট্টগ্রামের মিরসরাইতে ৯০ একর জমি দেয়া হয়েছিলো রিলায়েন্সকে। তবে প্রতিষ্ঠানটি সেদিকে না গিয়ে দক্ষিণ চট্টগ্রামের গহিরার দিকে নজর দিয়েছে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য।

বেজার নির্বাহী পরিচালক পবন চৌধুরী বলেছেন, ‘রিল্যায়েন্স চট্টগ্রামে কয়েকটি পাওয়ার প্ল্যান্ট করতে চায়। সেগুলো আনোয়ারা কিংবা মিরসরাইতে হতে পারে। তারা আগ্রহ দেখিয়ে আমাদের কাছে জমি অধিগ্রহণ ও সম্ভাব্যতার ব্যাপারে আমাদের অবস্থান জানতে চেয়েছে। আমরা সব কিছু বিবেচনা করছি।’

জ্বালানী, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এমপি বলেছেন, ‘রিলায়ান্সের প্রস্তাব সরকার বিবেচনায় রাখছে। এটি ফিরিয়ে না দিয়ে প্রকল্পের ফলে সরকারের লাভ ক্ষতি সব দিক বিবেচনা করে বিদেশী এই বিনোয়েগের ব্যাপারে সরকার সিদ্ধান্ত নেবে।’

উল্লেখ্য, দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দরকে ঘিরে আনোয়ারা উপজেলায় ৭৭৫ একর জমির ওপর বিশেষ অর্থনৈতিক জোন স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়। ইতোমধ্যে অর্থনৈতিক জোনের জন্য ২৯১ একর খাস জমি প্রতীকী মূল্যে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) কাছে হস্তান্তর করেছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত