টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

এখন থেকে বাংলায় খান একাডেমি

Event-Photoচট্টগ্রাম, ০২ মার্চ (সিটিজি টাইমস) : আজ এক সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বজুড়ে সমাদৃত অনলাইন এডুকেশন প্ল্যাটফর্ম খান একাডেমির বাংলা সংস্করণের উন্মোচন করলো গ্রামীণফোন ও আগামী। খান একাডেমির বাংলা সংস্করণের লিঙ্কটি হলো bn.khanacademy.org

সবার জন্য যেকোনো স্থানে বিনামূল্যে বিশ্বমানের শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০০৬ সালে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত উদ্যোক্তা ও শিক্ষাবিদ সালমান খান যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান খান একাডেমি (www.khanacademy.org) প্রতিষ্ঠা করেন। খান একাডেমি সব বয়সের সব শিক্ষার্থীর জন্য অনলাইনে বিনামূল্যে বিষয়ভিত্তিক শিক্ষার উপকরণ ও উৎসভিত্তিক সহায়তা দিয়ে আসছে। খান একাডেমিতে রয়েছে নিয়মিত চর্চার অনুশীলনী, নির্দেশনামূলক ভিডিও, ড্যাশবোর্ড বিশ্লেষণ ও শিক্ষক উপকরণ যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ ও এর বাইরে নিজেদের মতো করে অধ্যয়নের মাধ্যমে ক্ষমতায়নের সুযোগ পাবে। খান একাডেমির বাংলা সংস্করণ উন্মোচনের মাধ্যমে দেশজুড়ে শিক্ষার্থী ও শিক্ষাবিদরা খান একাডেমির সকল বিষয়বস্তু ও উপকরণ বাংলায় পড়তে পারবেন।

আগামী, গ্রামীণফোন ও খান একাডেমির যৌথ সহযোগিতার ভিত্তিতে খান একাডেমির বাংলায় রূপান্তর সম্ভব হয়েছে। এ সহযোগিতার অংশ হিসেবে গত ৮ মাসে ২ মিলিয়ন শব্দ ও ৬শ’র বেশি ভিডিও বাংলা ভাষায় রূপান্তর করা হয়েছে। খান একাডেমি রূপান্তরের এ কার্যক্রম এখনও চলছে। সামনের দিনগুলোতে খান একাডেমির বাংলা সংস্করণে আরও বেশি কন্টেন্ট ও অতিরিক্ত অনেক বিষয় যুক্ত হবে। এছাড়াও, খান একাডেমি বাংলা ওয়েবসাইটের মূল্যায়ণ ও বিস্তৃতির জন্য স্কুল পর্যায়ে একটি পরীক্ষামূলক গবেষণা চালানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে।

খান একাডেমি বাংলা সংস্করণের উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, এমপি।

এ উদ্যোগ নিয়ে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব শেঠি বলেন, “এ মহৎ উদ্যোগের অংশ হতে পেরে গ্রামীণফোন অত্যন্ত গর্বিত। এখন, বাংলা ভাষা-ভাষী শিক্ষার্থী ও শিক্ষাবিদরা যেকোনো জায়গায় যেকোনো সময় তাদের হাতের নাগালে উচ্চ মানসম্পন্ন শিক্ষা উপকরণ খুঁজে পাবে। দেশের প্রতিটি ঘরে ইন্টারনেটের সুবিধা পৌঁছে দেয়াই আমাদের ‘সবার জন্য ইন্টারনেট’ প্রচারণার লক্ষ্য। ব্যক্তি, সমাজ ও জাতিকে উপকৃত করার ক্ষেত্রে মানসম্পন্ন শিক্ষা ব্যবস্থা সহজলভ্য করার চেয়ে আর ভালো কোনো উপায় নেই”।

এ উদ্যোগ নিয়ে আগামী এডুকেশন ফাউন্ডেশনের সভাপতি অধ্যাপক মসিহুজ্জামান বলেন, ‘আগামীর বাংলাদেশের সব শিশুর মানসম্পন্ন শিক্ষাগ্রহণের সমান সুযোগ নিশ্চিত করার রূপকল্প বাস্তবায়নে খান একাডেমি বাংলা একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। দেশজুড়ে শিক্ষার্থী, বাবা-মা ও শিক্ষকরা যেন বিনামূল্যে এ অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমকে শিক্ষার উৎস হিসেবে সদ্ব্যবহার করতে পারে এটা নিশ্চিত করতে আমাদের কার্যক্রম ধারাবাহিকভাবে চলবে”।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত