টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

‘আমরা নারীরা পিছিয়ে থাকিনি, থাকবো না’

চট্টগ্রাম, ২৭ ফেব্রুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  বাংলাদেশের সবক্ষেত্রে নারীদের ভূমিকার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আজ আমরা নারীরা সবক্ষেত্রেই দক্ষতার পরিচয় দিয়েছি। আমরা পিছিয়ে থাকিনি, থাকবোও না।

আজ শনিবার বিকালে রাজধানীর বেইলি রোডে মহিলা সমিতি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। মহিলা সমিতির নবনির্মিত কমপ্লেক্সের উদ্বোধন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সমাজে নারীরা খুব পিছিয়ে ছিল। জাতির পিতাই সর্বপ্রথম চাকরিতে নারীদের জন্য ১০ ভাগ বরাদ্দ দেন। নির্যাতিত ও দুস্থ নারীদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করে দেন। নারীদের শিক্ষা অবৈতনিক করার ব্যাপারে উদ্যোগ নেন। আমাদের জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসন জাতির পিতার অবদান। আজ সমাজে নারীদের যে অবস্থান এর ভিত্তিটা রচনা করে গেছেন জাতির পিতা।

শেখ হাসিনা বলেন, মহিলা সমিতির নাট্যমঞ্চ আমার অনেক পরিচিত। প্রায়ই এখানে আসতাম। অনেক সময় লুকিয়ে আসতে হতো। ব্যক্তিগতভাবে আমি নাটক দেখতে পছন্দ করি। তবে এখন আর আসার সুযোগ হয় না। তবে মহিলা সমিতির সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুবই ঘনিষ্ঠ।

এ সময় তিনি মহিলা সমিতির বিভিন্ন অবদানের কথা উল্লেখ করেন। মহিলা সমিতির প্রতিষ্ঠাতাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এই ভবনের উদ্বোধন করতে পারায় মহিলা সমিতি কর্তৃপক্ষের কৃতজ্ঞতাও জ্ঞাপন করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি ক্ষমতা গ্রহণের পর দেখলাম উচ্চপদে কোনো নারী নেই। আমিই প্রথম সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগে নারী বিচারপতি নিয়োগ করলাম। দেশের দুইটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নারী ভিসি দিলাম। বুয়েটের মতো বিশ্ববিদ্যালয়ে নারী ভিসি দিলাম। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে গণ্ডগোল লেগেই থাকতো সেখানে নারী ভিসি নিয়োগ দেয়ার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি পদে নারীকে নিয়োগ দিয়েছি। আমার আরেকটি ইচ্ছা আছে। ইতোমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে বলে দিয়েছি। আশা করি সেটা পূরণ হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, এসব উচ্চপদে যখন নারীদের বসাই তখন অনেকেই বিরোধিতা করেছে। কিন্তু দায়িত্ব পাওয়ার পর নারীরা যে দক্ষতা দেখিয়েছে তাতে সবাই খুশি।

মতামত