টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি, সাড়ে ৩শ ভরি স্বর্ণ লুট, আহত ২

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ২৬ ফেব্রুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  মিরসরাইয়ে একটি স্বর্ণের দোকান থেকে প্রায় সাড়ে ৩শ ভরি স্বর্ণ লুট করেছে ডাকাত দল। এসময় ডাকাত দল ককটেল ফাটিয়ে ও গুলি ছুঁড়ে বাজারে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। ককটেলের আঘাতে ২ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) মাগরিবের নামাজ চলাকালে বারইয়ারহাট পৌরসভার মসজিদ গলির শামীম জুয়েলার্সে এই ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন বারইয়ারহাট বাজারের ব্যবসায়ী মো.শাহজাহান ও স্কুল ছাত্র মো.অনিক। আহতদের বারইয়ারহাট কমফোর্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, একটি মাইক্রোবাস থেকে ৮-১০জনের একটি ডাকাত দল বারইয়ারহাট মসজিদ গলির সামনে এসে একের পর এক ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। ডাকাতদের কয়েকজন শামীম জুয়েলার্সের ভেতর ঢুকে র্স্বণ লুট করতে থাকে। পাশ্ববর্তী মসজিদের মাইক থেকে ডাকাতির ঘটনা প্রচার করতে থাকলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসে। একপর্যায়ে ডাকাত দল লুট করা স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে যায়।

শামীম জুয়েলার্সের স্বত্তাধিকারী সাহাবুদ্দীনের জামাতা মো. বেলায়েত জানান, মাগরিবের নামাজের সময় দোকানে তার স্ত্রীর বড় ভাই সাইফুল ইসলাম বাপ্পী ও একজন কর্মচারী দোকানে ছিল। নামাজের কারণে মার্কেটও ফাঁকা ছিল। এসময় ডাকাত দল দোকানের সামনে নেমে ককটেল বিস্ফোরণ ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। কয়েকজন ডাকাত দোকানে ঢুকে সাইফুল ইসলাম ও কর্মচারীকে মারধর করে দুইটি ব্যাগে করে প্রায় সাড়ে ৩শ ভরি স্বর্ণ লুট করে নেয়। এক পর্যায়ে ডাকাতির কথা মসজিদের মাইকে প্রচার করতে থাকলে ডাকাত দল পালিয়ে যায়। ডাকাতরা একটি চটের বস্তা দোকানে পেলে গেছে। পুলিশ ওই বস্তাটি উদ্ধার করে।

বাজারের ব্যবসায়ী আলী আহসান জানান, এরআগে বারইয়ারহাট বাজারের রূপসী জুয়েলার্স ও মদিনা জুয়েলার্স ডাকাতির ঘটনায় কোন ক্লু উদ্ধার হয়নি। ফলে বারইয়ারহাট বাজারে একের পর এক দোকান ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ দুইয়েকদিন তৎপরতা দেখিয়ে পরবর্তীতে নীরব ভূমিকা পালন করে।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহেদুল করিম জানান, দোকান থেকে কি পরিমান স্বর্ণ লুট হয়ে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দোকানের সিসি ক্যামরার ভিডিও ফুটেজও সংগ্রহ করা হয়েছে। পুলিশ লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাত দলকে চিহ্নিত করে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

প্রসঙ্গত : এর আগেও বারইয়ারহাট এবং উপজেলার জোরারগঞ্জ বাজারে আরো ৩টি স্বর্ণের দোকান ডাকাতি হলেও স্বর্ণ উদ্ধার কিংবা ডাকাতি মামলার কোন অগ্রগতি না থাকায় এ ঘটনা ঘটছে বলে ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন।

মতামত