টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ: রিহার্সাল শেষ, অপেক্ষা নাটকের

চট্টগ্রাম, ২৩ ফেব্রুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  কথাটা সবাই জানেন। হাথুরুসিংহে থেকে মাশরাফি। মাশরাফি থেকে মুস্তাফিজ। টি-টোয়েন্টির এই ভারতকে হারানো সহজ হবে না। সেজে থাকা মঞ্চে নাটক শুরু হওয়ার আগে থমথমে নীরবতায়ও এই সুর বেজে চলেছে। এর মাঝে বিকেলে মাশরাফি ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বলে গেলেন, তাদের দিনে যে কোনো কিছু ঘটতে পারে। স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন তার কাছে একটা মুস্তাফিজ আছে। বিরাট কোহলি আবার নাটক জমিয়ে দিয়েছেন মুস্তাফিজকে সামলাতে ‘ভিন্ন কোনো কৌশলে’র কথা বলে।

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের অবস্থা খুব একটা ভাল নয়। ভারতের বিপক্ষে এই ফরম্যাটের ক্রিকেটে মাশরাফিদের সঙ্গে ভারতের দ্বিতীয় এবং সর্বশেষ দেখা হয় ২০১৪ সালে। সেবার ১০৬ রান করেও বেরিয়ে গিয়েছিল ভারত। প্রথম বারের দেখায়ও দাপট দেখিয়ে জিতেছিল দলটি।

বাংলাদেশ নিজেদের সর্বশেষ ১৯ ম্যাচের ১৪টিতে জিতেছে। শঙ্কার কথা হল হেরে যাওয়া পাঁচ ম্যাচের মধ্যে তিনটিই টি-টোয়েন্টিতে।

অন্যদিকে ধোনির ভারত ওয়ানডেতে ধুঁকলেও টি-টোয়েন্টিতে রীতিমতো উড়ছে। অস্ট্রেলিয়াকে তাদেরই দেশে হোয়াইটওয়াশ করার পর শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়েছে। টি-টোয়েন্টির র‌্যাংকিংয়েও তারা সবার উপরে।

এই হিসাব-নিকাশ বাংলাদেশের অজানা নয়। আর তাই তো এশিয়া কাপ আসার অনেক থেকেই ছেলেদের নিয়ে কাজ শুরু করেন হাথুরুসিংহে। খুলনা এবং চট্টগ্রামে দুই পর্বে অনুশীলন করেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। ভারতের অবস্থা আবার এই দিক থেকে কিছুটা ভিন্ন। তারা ম্যাচের ভেতর থাকলেও অফিসিয়ালি অনুশীলন করার সময় পায়নি। অস্ট্রেলিয়া থেকে উড়ে আসার পর ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার মোকাবিলা করতে হয়েছে ধোনিদের। সেখান থেকে সরাসরি ঢাকায়। এসবের মাঝে ভারতের অস্বস্তি আছে আরো দুটি জায়গায়। ধোনি শেষ পর্যন্ত খেলতে না পারলে ব্যাটিং লাইন একটু নড়চড় করতে হবে। তার পরিবর্তে দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলে ডাক পাওয়া পার্থিব প্যাটেলকে নিয়ে দলটির চিন্তা থাকছেই। কেননা ছয় নম্বরে ধোনির বিকল্প খুঁজে পাওয়া সহজ কথা নয়। ভারতীয় দলের একটি সূত্র অবশ্য বলছে, ধোনি এখন সুস্থ আছেন। প্রথম ম্যাচে খেললেও খেলতে পারেন। অন্যদিকে যুবরাজ সিং ম্যাচ প্রাকটিসের খুব একটা সুযোগ পাননি। অস্ট্রেলিয়ায় শেষ ম্যাচে ঝলক দেখানোই তার সম্বল। অনেক আলোচনার জন্ম দিয়ে জাতীয় দলে ফেরার পর খেলতে পেরেছেন মাত্র ২৬টি বল। আরেক মিডল অর্ডার হারদিকের অবস্থাও প্রায় একই। তিনি মোকাবিলা করেছেন ১৮ বল। প্রতিটি ম্যাচে প্রথম সারির ব্যাটসম্যানরা ক্লিক করে যাওয়ায় তাদের এই ‘দশা’। কিন্তু প্রত্যেক ম্যাচে তো আর তেমন হবে না।

মিডলঅর্ডারে বাংলাদেশের ভাবনা জুড়ে রয়েছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং সাকিব আল হাসান। বিপিএলে রিয়াদ ভাল করলেও জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টিতে তার অতীত সুখকর নয়। রিয়াদ অবশ্য কথা দিয়েছেন বিপিএলের ছন্দ তিনি এশিয়া কাপে ধরে রাখবেন। এও বলে দিয়েছেন নেমেই ছয় মারার চিন্তা আছে তার! অন্যদিকে সাকিব বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) বল হাতে ভাল করলেও ব্যাটিংয়ে মলিন ছিলেন। তারপর পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) দুই বিভাগেই ‘সুপার ফ্লপ’ দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই অলরাউন্ডার। সমস্যা কাটাতে সম্প্রতি তাকে দেখা গেছে ছেলেবেলার কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের ক্লাসে। শৈশব গুরুর ‘মন্ত্রে’ অলরাউন্ডার কতটা জেগে উঠতে পারেন সেটাই দেখার বিষয়। বাংলাদেশের চিন্তা আছে ওপেনিং নিয়েও। পিএসএলে ঝড়তোলা তামিম ইকবালকে না পাওয়ার আপসোস ঘুরে বেড়াবে মিরপুর স্টেডিয়াম জুড়ে। সৌম্য সরকার আবার শেষ কয়েক ম্যাচে ছন্দে নেই। বুধবার সন্ধ্যায় শুরু হতে যাওয়া ম্যাচে এই ওপেনারের জায়গা নিশ্চিত হলেও তার সঙ্গী হতে লড়াই হবে ইমরুল আর মিঠুনের ভেতর। বাংলাদেশ দলের অন্দর মহলের খবর চট্টগ্রামের ক্যাম্পে মিঠুনকে মনে ধরেছে কোচের। তাই প্রথম ম্যাচে ইমরুলের পরিবর্তে তাকে খেলানোর একটা সম্ভাবনা আছে।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান, রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, সাকিব, নুরুল হাসান (উইকেট রক্ষক), মাশরাফি, আরাফাত সানি, মুস্তাফিজ, আল-আমিন।

ভারতের সম্ভাব্য একাদশ: শেখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, সুরেশ রায়না, যুবরাজ সিং, মহেন্দ্র সিং ধোনি/প্যাটেল, হারদিক পান্ডে, রবীন্দ্র জাদেজা, অশ্বিন, যশপ্রিত বুমরাহ, আশিস নেহেরা।-ঢাকাটাইমস

মতামত