টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

২১ ফেব্রুয়ারি ডট বাংলা চালু নিয়ে ‘অনিশ্চয়তা’

banglaচট্টগ্রাম, ১৬ ফেব্রুয়ারি (সিটিজি টাইমস) : বহুল প্রতীক্ষিত ডট বাংলা ডোমেইন ২১ ফেব্রুয়ারি চালু হওয়া নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশ ডট বাংলা চালুর যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করলেও আইকানের কাছ থেকে সবুজ সংকেত না পাওয়ায় নির্ধারিত দিনে চালু করা সম্ভব হবে না কান্ট্রি টপ-লেভেল এই ডোমেইন। যদিও গত ১৬ ডিসেম্বর এটি উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল।

গত ডিসেম্বর মাসের শুরুতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছিলেন, ১৬ ডিসেম্বর বায়োমেট্রিক (আঙুলের ছাপ) পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন কার্যক্রম উদ্বোধনের কারণে ডট বাংলা চালুর তারিখ পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি ডট বাংলা উদ্বোধন করা হবে। গত ৬ জানুয়ারি এক অনুষ্ঠানেও তিনি ২১ ফেব্রুয়ারি ডট বাংলা চালুর কথা বলেছিলেন।

রবি ও সোমবার ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং ডট বাংলার তত্ত্বাবধানকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) সঙ্গে যোগাযোগ করেও নিশ্চিত হওয়া যায়নি ২১ ফেব্রুয়ারি ডট বাংলা চালু হচ্ছে কি না।

বিটিসিএল-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম ফখরুদ্দিন আহমেদ জানান, বাংলাদেশ ডট বাংলা নিয়ে সম্পূর্ণরূপে প্রস্তুত। কিন্তু এখনও এটি চালুর জন্য ইন্টারনেটে ডোমেইন নাম, ঠিকানা বরাদ্দকারী সংস্থা ইন্টারনেট করপোরেশন ফর অ্যাসাইনড নেমস অ্যান্ড নাম্বারস (আইসিএএনএন) বা আইকানের কাছ থেকে অনুমতি পাওয়া যায়নি। তারা তাদের বোর্ড মিটিংয়ে অনুমোদন করলেই এটি চালু করা যাবে।

গোলাম ফখরুদ্দিন বলেন, আমরা তাদের কাছে বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছিলাম। কিন্তু ওরা বোর্ড মিটিংয়ে পাস না করিয়ে ডট বাংলা চালুর অনুমোদন দিতে রাজি হয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আইকানের বোর্ড মিটিং কবে হবে সেটি জানা যায়নি। হাতে আর যে ক’দিন সময় আছে তার মধ্যেও অনুমোদন পেলে বিষয়টি নিয়ে ইতিবাচক উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এদিকে, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা  জানান, ২১ ফেব্রুয়ারির আগে অনুমতি পাওয়ার সম্ভাবনা একেবারে ক্ষীণ। তবে, পাওয়া গেলেও তা চালু করা যাবে কি না, এ নিয়ে সংশয়ে আছেন খোদ মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা। তিনি জানান, ওই সময় ডট বাংলা চালুর অনুমোদন পাওয়া গেলেও চালু করা যাবে না। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, ওই সময়ে বিভাগের প্রতিমন্ত্রী বিদেশ সফরে থাকবেন। সবমিলিয়ে বিষয়টি আবারও ঝুলে গেল বলে মনে করেন ওই কর্মকর্তা।

এর আগে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ সূত্র জানায়, জুলাই মাসের ৮ তারিখে আইকান টেলিযোগাযোগ বিভাগে চিঠি দিয়ে নিশ্চিত করে কান্ট্রি টপ-লেভেল ডোমেইন ডট বাংলা বাংলাদেশেরই রয়েছে।

প্রসঙ্গত, ইন্টারনেটে ডোমেইন নাম, ঠিকানা বরাদ্দকারী সংস্থা হলো ইন্টারনেট করপোরেশন ফর অ্যাসাইনড নেমস অ্যান্ড নম্বরস (আইসিএএনএন) বা আইকান। আইসিএএনএন ইন্টারন্যাশনালাইজড ডোমেইন নেম (আইডিএন) হিসেবে ডট বাংলার প্রথম পর্যায়ের অনুমোদন দেয়। এর আগে আইসিএএনএন-এর ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখা যায় সেখানে ডট বাংলা ডোমেইনের ‘অপারেশনাল মেট্রিকস’ অংশে স্ট্যাটাসের ঘরে লেখা ‘পেন্ডিং ডেলিগেশন’। ডট বাংলা বাংলাদেশের দ্বিতীয় কান্ট্রি কোড টপ-লেভেল ডোমেইন (সিসি-টিএলডি)। প্রথমটি হলো ডট বিডি ।

গত বছরের ২৮ জুন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ডোমেস্টিক নেটওয়ার্কিং কো-অর্ডিনেশন কমিটির (ডিএনসিসি) বৈঠকে বিটিসিএলকে এ দায়িত্ব দেওয়া হয়। এর ফলে ডট বাংলার গতি হয়। এর তত্ত্বাবধানকারীর দায়িত্ব পায় বিটিসিএল। যদিও গত ৪ বছর ধরে অভিভাবকহীন ছিল ডট বাংল‌‌‌া।

জানা যায়, ২০১১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি এটি পেতে আবেদন করা হয়। আইকান বাংলা ভাষার জন্য স্ট্রিং ইভ্যালুয়েশন (বাংলা অক্ষরগুলো চেনার জন্য নির্দিষ্ট কোড আইডিএন সিসিটিএলডি) প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ইন্টারনেট অ্যাসাইন্ড নম্বরস অথরিটি (আইএএনএ) বাংলার জন্য কোডটি (আইডিএন সিসিটিএলডি) অনুমোদনও (ডিএনস রুট জোনে ডেলিগেট) করে।

২০১২ সালে ডট বাংলা ব্যবহারের অনুমতি পেলেও পদ্ধতিগত এবং কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে না পারায় এখনও তা বাংলাদেশের হয়নি। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) না বিটিসিএল—কোন সংস্থা এটি তত্ত্বাবধান করবে, এ বিষয়ে দীর্ঘদিনেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় বিষয়টি দীর্ঘসূত্রিতার কবলে পড়ে।

গত বছরের ১৯ মে আইকানের একটি প্রতিনিধি দল সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তখন কিভাবে সমস্যার সমাধান করা যায় সে বিষয়ে প্রতিনিধি দলের পরমর্শ চান পলক। প্রতিনিধি দলের পরামর্শে প্রতিমন্ত্রী উদ্যোগী হলে দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে থাকা কার্যক্রমে গতি আসে। আইকানের পরিচালক (সিকিউরিটি ও সার্ভেইলেন্স) জন এল ক্রেইন ও এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওনের পার্টনার এনগেইজমেন্ট ম্যানেজার চম্পিকা বিজয়েতুঙ্গা দেখা করেন জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে। তখন তিনি ডট বাংলার গুরুত্ব, অনলাইনে বাংলার অবস্থান, বাণিজ্যিক বিষয়ে গুরত্ব আরোপ করেন।-বাংলা ট্রিবিউন

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত