টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির নির্বাচন চলছে

Ctg-Bar_Logoচট্টগ্রাম, ০৯ ফেব্রুয়ারি (সিটিজি টাইমস) ::চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলছে। আজ বুধবার সকাল ৯টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে, চলবে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনকে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে আইনজীবীদের মধ্যে। নগরীর পরীর পাহাড় খ্যাত আদালত ভবন এলাকায় জেলা আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে ভোটগ্রহণ চলছে। সকাল থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন পেশার প্রতিনিধিরা নির্বাচন দেখতে এবং দলীয় প্রার্থীদের সমর্থন জানাতে আদালত এলাকায় ছুটে যান।

এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সমর্থিত তিনটি প্যানেল। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ, একটি বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ এবং অন্যটি আওয়ামী লীগ ও বাম সমর্থিত সমমনা আইনজীবী সংসদ।

সকালে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ প্রার্থীদের সমর্থন এবং নির্বাচন পর্যক্ষেণ করতে আদালতে যান চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন। সময় তার সাখে দলীয় নেতা কর্মীরাও ছিলেন। ডা. শাহাদাত হোসেন প্যানেল প্রার্থীদের সাথে কথা বলেন, নির্বাচন সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন। তিনি বেশ কিছুক্ষণ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেন।

এদিকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের পক্ষে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে যান চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসলেম উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, কেন্দ্রিয় যুবলীগের সদস্য জাহিদুর রহমান সোহেলসহ অন্যান্য নেতা কর্মী।

জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে তিনটি প্যানেলের প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণায় আদালত পাড়া ছিল উৎসব মুখর। মিছিলে মিছিলে সরগরম ছিল আদালত প্রাঙ্গন।

তবে সাধারণ আইনজীবিদের অভিযোগ নিয়ম মোতাবেক ভোট গ্রহণের ২৪ ঘন্টা আগে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও আজ নির্বাচনের দিনও মিছিল শ্লোগানে মুখরিত আদালত প্রাঙ্গণ। তবে এনিয়ে কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন প্রবীণ আইনজীবি অভিযোগ করেন, একটি প্যানেলের পক্ষে কিছু বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের এনে গলায় ব্যাজ ঝুলিয়ে তাদের লিফলেট ও পরিচিতি কার্ড বিলিসহ নানা প্রচার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। তা আইনত ঠিক না।

জানাগেছে এবার সমিতির নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ৩ হাজার ৪৫০ জন। সমিতির ১৯টি পদের বিপরীতে তিনটি প্যানেলের মোট ৪৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের প্রার্থী হয়েছেন রতন কুমার রায়, ঐক্য পরিষদের প্রার্থী মোহাম্মদ কফিল উদ্দিন চৌধুরী এবং সমমনার প্রার্থী হিসেবে আছেন হুমায়ন কবির। সাধারণ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মো. আবু হানিফ, ঐক্য পরিষদের এস ইউ নূরুল ইসলাম ও সমমনার এস এম জাহেদ প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।

জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি পদে লড়ছেন সমন্বয় পরিষদের মুজিবুর রহমান চৌধুরী, ঐক্য পরিষদের শেখ মো. ছাবেদুর রহমান ও সমমনার মোহাম্মদ আলী। সহ-সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের আলী আশরাফ চৌধুরী, ঐক্য পরিষদের এইচ এস আবুল হাসান ও সমমনার এ কে এম রুহুল আমিন। সহ সাধারণ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ইয়াছিন খোকন, ঐক্য পরিষদের হাসান আলী চৌধুরী এবং সমমনার মোহাম্মদ রাসেল প্রার্থী হয়েছেন।

অর্থ সম্পাদক পদে প্রার্থী সমন্বয় পরিষদের শাহেদুল আজম শাকিল ও ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। পাঠাগার সম্পাদক পদে লড়ছেন সমন্বয় পরিষদের ইকবাল হোসেন, ঐক্য পরিষদের ফজলুল বারী ও সমমনার হামিদ আলী চৌধুরী। সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে সমন্বয়ের দুলাল চন্দ্র দেবনাথ, ঐক্য পরিষদের হাসনা হেনা ও সমমনার তাজউদ্দিন লড়ছেন। তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের ফয়েজ উদ্দিন চৌধুরী, ঐক্য পরিষদের রায়হান সালেহীন ও সমমনার ফোরকান চৌধুরী প্রার্থী হয়েছেন।

এছাড়া নির্বাহী সদস্য পদে সমন্বয় পরিষদের আজহারুল হক, ফখরুল ইসলাম, গোলাম মোস্তফা, খাইরুন্নিসা আখতার, মনিরুজ্জামান, মিলি বিশ্বাস, রুবেল কুমার দেব অপু, সাজেদা বেগম, সুচিত্রা লালা মুন্নি ও শুভাশীষ শর্মা প্রার্থী হয়েছেন। ঐক্য পরিষদ থেকে নির্বাহী সদস্য পদে প্রার্থীরা হলেন মোহাম্মদ হাবিব, জানে আলম, মিনহাজ উদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, নাসির উদ্দিন আহম্মদ খান, ওমর ফারুক, রাশেদুল ইসলাম চৌধুরী ও শফিকুল আলম লিটন। সমমনা থেকে নির্বাহী সদস্য পদে শুধু আলিমুল আহসান রাসেল প্রার্থী হয়েছেন।

নির্বাচনের সার্বিক বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার আ ক ম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, সকাল থেকে শান্তিপূণ এবং আনন্দগণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। ৭০ জন নির্বাচন কর্মকর্তা নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করছে। সুষ্ঠু সুন্দর পরিবেশে নির্বাচন হচ্ছে। আপাততে সব ঠিকটাক রয়েছে, কোন সমস্যা নেই।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত