টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত করিনি, এটা ষড়যন্ত্র

চট্টগ্রাম, ০৬ ফেব্রুয়ারি (সিটিজি টাইমস) ::  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে প্রতিকৃতি বিকৃত করে নিজের ছবির সাথে বঙ্গবন্ধুর মাথা লাগিয়ে ব্যানার-ফেস্টুন লাগানোর ঘটনা অস্বীকার করে সরকার দলীয় এমপি এম. এ. লতিফ বলেছেন, আমি কেন, কোনো সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ এমন গর্হিত কাজ করতে পারে না। এ ঘটনাকে তার বিরুদ্ধে সাত বছর ধরে চলে আসা নগর আওয়ামী লীগের একটি অংশের ষড়যন্ত্র বলে উল্লেখ করেন তিনি।

শনিবার দুপুরে চিটাগাং চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের উদ্যোগে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান চেম্বারের সাবেক সভাপতি এমএ লতিফ এমপি।

লতিফ বলেন, আমি ফটো তোলার রাজনীতি জীবনে করি নাই। আমি প্রচার বিমুখ মানুষ। আমার এলাকায় কোনো কিছু বিতরণ করলেও আমি কখনো ছবি তুলে প্রচার করিনি। যেদিন নেত্রী আমাকে নমিনেশন দিয়েছেন সেদিন থেকে একটি মহল আমাকে হেনস্তা করার চেষ্টা করে আসছে। আমাকে ঘায়েল করার জন্য আমার কিছু শ্লোক ব্যবহার করে জাতীর পিতার ছবি বিকৃত করার মধ্য দিয়ে জাতির পিতাকে হেয় করেছে। যেহেতু আমাকে জড়িয়ে এ ধরণের মিথ্যা অভিযোগ তোলা হয়েছে সেহেতু আমি নিজেই যারা এ গর্হিত কাজ করেছে তাদের চিহ্নিত করব এবং তাদের শাস্তি দাবি করছি।

সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি উল্টো প্রশ্ন করেন, আমার শরীরের সঙ্গে জাতির পিতার ছবি জুড়ে দিয়ে ব্যানার করলে আমার কী লাভ হবে। এতে আমার স্বার্থ কোথায়?

লতিফ আরো বলেন, আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ মহলে আমি এ নিয়ে কথা বলেছি। দলের নীতিনির্ধারকরা এ ব্যাপারটি জানেন, তারা বলেছ আমি এ কাজ করতে পারি না। আমার প্রতি তাদের সে বিশ্বাস রয়েছে।

কারা আপনার বিরুদ্ধে এ ষড়যন্ত্র করছে সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কারো নাম নিতে চাই না, তবে আপনারা দেখেছেন মহানগরসংবাদ সম্মেলনে এমপি লতিফের দাবি আওয়ামী লীগের কারা আমার বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েছেন। তারা অতীতেও আমাকে বার বার হেনস্তা করার চেষ্টা করেছে। গত সাত বছর ধরে তারা পেছনে লেগে আছে উল্লেখ করে এম এ লতিফ বলেন আমাকে ঘায়েল করার জন্য তারা আমার পেছনে লেগেছে।’

কেন ওই মহলটি আপনার পেছনে লেগে আছে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমি বন্দর সচল রাখতে চাই। সাত বছরে এক দিনের জন্য বন্দর বন্ধ হয়নি। বন্দরের উন্নয়ন চাই। চট্টগ্রাম বন্দর কী ছিল আজ কোথায় পৌঁছেছে আপনারা জানেন। বন্দর আজ আধুনিক এবং আন্তর্জাতিক বন্দরে পরিণত হয়েছে। সে কারণে তারা আমার পেছনে লেগে আছে বলে উল্লেখ করেন লতিফ।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চেম্বারে সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ জামাল, সহ-সভাপতি নুর নেওয়াজ সেলিম। উপস্থিত ছিলেন, সীতাকুণ্ডের সংসদ সদস্য দিদারুল আলম, চেম্বার পরিচালক মোহাম্মদ শাহ। এছাড়া এমপি লতিফের আসন বন্দর পতেঙ্গা এলাকার আওয়ামী লীগের অনেক নেতা-কর্মী সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত