টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে ৩ ব্যাংক কর্মকর্তাসহ ৪ জনের ২০ বছর কারাদণ্ড

চট্টগ্রাম, ২৭ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  ক্ষমতার অপব্যবহার করে চিনি আমদানির নামে ব্যাংকে ভূয়া এলসি খুলে দেড় কোটি টাকা আত্মসাতের দুর্নীতির মামলায় তিন ব্যাংক কর্মকর্তা ও এক ব্যবসায়িকে ২০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মীর রুহুল আমিন এ রায় দেন। দণ্ডিত চারজন হলেন, অগ্রণী ব্যাংকের নগরীর খাতুনগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক আব্দুস শুক্কুর, ক্যাশিয়ার মাইনুদ্দিন চৌধুরী, কর্মকর্তা তড়িৎ কান্তি সেন এবং খাতুনগঞ্জের সাতকানিয়া ট্রেডার্সের মালিক বিভূতি রঞ্জন তালুকদার। এদের মধ্যে বিভূতি রঞ্জন তালুকদার ছাড়া বাকি সবাই পলাতক রয়েছেন।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের সরকারি কৌসুলি অ্যাডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ রায়ের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, অভিযুক্তরা পরস্পরের যোগসাজসে চিনি আমদানীর নামে ব্যাংকে ভুয়া এলসি খুলে দেড়কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ব্যাপারে পৃথক ৪টি মামলা হলে আদালত প্রতিটি মামলায় ৪ জনকে ২০ বছর সাজা দেন এবং আত্মসাৎ করা দেড় কোটি টাকা চারজনকে সমান ভাগে পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছেন।

দুদকের আইনজীবী মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ১৯৮৬ সালের ৩ মার্চ থেকে ১৯৮৭ সালের ১৬ জুন পর্যন্ত সময়ে আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে জাল জালিয়াতির মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অগ্রণী ব্যাংক খাতুনগঞ্জ শাখা থেকে চিনি আমদানির কথা বলে টাকা উত্তোলন করে দেড়কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ঘটনায় তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরোর পরিদর্শক আবু মো. আরিফ সিদ্দিকী বাদী হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় পৃথক চারটি মামলা করেন। ১৯৮৭ সালের ৩১ আগস্ট মামলাগুলো রুজু করা হয়। তদন্ত শেষে ১৯৮৯ সালের ২৭ জুলাই অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২০০০ সালের ৪ জুলাই আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু হয় আদালতে। প্রত্যেকটি মামলায় ১১ থেকে ১২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত রায় দেন।

দুদক আইনজীবী আরো বলেন, রায়ের আদেশে বিচারক উল্লেখ করেন, চারটি মামলায় পৃথকভাবে চার আসামিকে পাঁচ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড, দুই হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ের আরো ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। সেই হিসেবে প্রত্যেকের ২০ বছর করে কারাদণ্ড হয়। আদালত আসামিদের আত্মসাৎ করা দেড়কোটি টাকা, তাঁদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিতে জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত