টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মামলা হলে খালেদার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ২৪ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  মুক্তিযুদ্ধে শহীদরে সংখ্যা নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা দায়ের হলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এবং তিনি বলেছেন, আইন অনুযায়ী সেই মামলা পরিচালনা হবে।

রবিবার দুপুরে এফডিসিতে ‘ডিবেট ফর ডেমক্রেসি’ ও ‘মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর’ আয়োজিত বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে অংশ নেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সেখানে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা অনুমোদনের বিষয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ প্রতিক্রিয়া জানান।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করা হবে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, একজন আইনজীবীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে গত বৃহস্পতিবার মামলা করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে একটি দৈনিকে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। শিগগিরই এ বিষয়ে মামলা হবে কি না জানতে পারবেন। আইন অনুযায়ী যা করা প্রয়োজন সেভাবেই প্রক্রিয়া চালানো হবে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক মমতাজউদ্দীন আহমেদের আবেদন বিবেচনায় এনে শনিবার রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার অনুমতি দেয় মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে করা ওই আবেদনে বলা হয়, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন। এ ছাড়া জাতির পিতা ও আওয়ামী লীগ নিয়েও বিরূপ মন্তব্য করেছেন তিনি। এসব সাংবিধানিকভাবে স্বীকৃত এবং প্রতিষ্ঠিত বিষয়। এ বিষয়ে নতুন করে বিতর্কের অবতারণা করায় তার অপরাধ রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও রাষ্ট্রদ্রোহের শামিল বলে মনে করা হচ্ছে। খালেদা সংবিধান লঙ্ঘন করে কথা বলেছেন এবং রাষ্ট্রদ্রোহমূলক অপরাধ করেছেন। আইনি নোটিশ দেওয়ার পরও তিনি ক্ষমা চাননি বা বক্তব্য প্রত্যাহার করেননি।

গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে খালেদা জিয়া বলেন, মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক আছে। তিনি বলেন, ‘আজকে বলা হয়, এত লাখ লোক শহীদ হয়েছে। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ না করে খালেদা জিয়া দাবি করেন, তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাননি। তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা না দিলে মুক্তিযুদ্ধ হতো না। খালেদা জিয়া একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারে সবাইকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানান।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো বলেন, দেশে মাদক একটি বড় সমস্যা। একে রোধ করার জন্য সরকার রাজনৈতিকভাবে অঙ্গিকারবদ্ধ। সরকারের পাশাপাশি পুলিশ, র‌্যাব বিজিবিসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রত্যেক শাখা কাজ করে যাচ্ছে। এই মাদকের কারণে ঐশীর মতো তরুণী তৈরি হয়েছে। আর যেন কোন ঐশী তৈরি না হয় সেজন্য আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা কাজ করছে। মাদক প্রতিরোধে দেশবাসীকে ভুমিকা রাখারও আহবান জানান তিনি।

মতামত