টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চবিতে সমাবর্তকে র্নিবিঘ্ন করতে পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে নিরাপত্তা বলয়

cuচট্টগ্রাম, ২৪ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) : আগামী ৩১ জানুয়ারী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) অনুষ্টিত হবে বহু প্রতীক্ষার চতুর্থ সমাবর্তন। এরই মধ্যে সমাবর্তন অনুষ্ঠানকে র্নিবিঘ্ন রাখাতে পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলা হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সমাবর্তনের সমাবেশ স্থল কেন্দ্রীয় খেলা মাঠ, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের পার্শ্ববতী এলাকা, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশমুখ সংলগ্ন কাটা পাহাড়, বিজ্ঞান অনুষদ পাশের হিলবটম কলোনীর পাশেসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে দিন রাত পুলিশ সার্বক্ষনিক নিয়োজিত রয়েছে। তাছাড়া বিশ্ববিদ্যায়ে বহিরাগতদের প্রবেশেও নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

নির্বিঘ্ন নিরাপত্তা নিশ্চিতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক, র‌্যাব, রাষ্ট্রপতির নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনী ছাড়াও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা একসাথে কাজ করে যাচ্ছে।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানায়, চতুর্থ সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করবেন রাষ্টপতি আব্দুল হামিদ।চবি থেকে পাশ করা সাত হাজার ১৯৪ জন গ্যাজুয়েট এতে অংশগ্রহণের আবেদন করেছেন। আগামী ২৯ ও ৩০ জানুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা অনুষদের মিলনায়তন ভবন থেকে গাউন সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়া সমাবর্তনের দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের ৭২ টি বুথ থেকেও গাউন সংগ্রহ করতে পারবেন।

তবে এর জন্য অংশগ্রহণকারীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইট থেকে নির্ধারিত ফরম পূরণ করে একটি কনভেশাল কপি নিয়ে আসতে হবে। যেখানে একটি একক কোড থাকবে। এর পর কনভেশাল কপিটির প্রদত্ত কোডের ভিত্তিতে গাউন সংগ্রহ করতে পারবেন।

এদিকে, সমাবর্তন অনুষ্ঠানের বাকী আছে আরো সাতদিন। তবে এরই মধ্যে সমাবর্তনকে কেন্দ্র করে সাজ সাজ পরিবেশ বিরাজ করছে ক্যাম্পাসে। সমাবর্তনের ঢেউ যেন ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারির মাঝে।

গ্যাজুয়েটদের বরনে পিছিয়ে নেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবন, প্রবেশ মুখ ও রাস্তার দুপাশের গাছ। এগুলোতে রঙ ও আলোক বাতি লাগিয়ে বর্ণিল রুপে সাজানোর প্রস্থুতি নেওয়া হয়েছে।

সমাবর্তনের সমন্বয় কমিটির প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. কামরুল হুদা বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে সমার্বন অনুষ্ঠানের কাজ এগিয়ে চলছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব এতিহ্যর সাথে তাল মিলিয়ে এই সমাবর্তনকে র্নিবিঘ্নে সম্পাদনের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে।

এদিকে সমাবর্তনের সার্বিক বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী বলেন, সমাবর্তনকে কেন্দ্র করে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পাশাপাশি চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক, রাষ্টপতির নিজস্ব নিরাপত্তা বাহিনী, নিরাপত্তায় নিয়োজিত সরকারের বিভিন্ন এজেন্ট কাজ করে যাচ্ছে।

এরই মধ্যে সমাবেশস্থলের মঞ্চ প্রস্থুতসহ বিভিন্ন প্রস্তুতির কাজ শেষের দিকে বলে জানান তিনি।

এরআগে ২০০৮ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ সমাবর্তন অনুষ্টিত হয়।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত