টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ফটিকছড়িতে অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে চার বসতঘর

খোলা আকাশের নিচে অসহায় চার পরিবার

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি প্রতিনিধি

fatickchari(ogni)-pic-18-01চট্টগ্রাম, ১৮  জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস):: ফটিকছড়িতে অগ্নিকান্ডে পুড়ে গেছে চার বসতঘর। আজ (সোমবার) বিকেল তিনটায় উপজেলা সদর পৌরসভার ধুরুং গ্রামের(বারৈয়ারহাটের পূর্ব পার্শ্বে) জানালী বাপের বাড়িতে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত দশ লক্ষ টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। রান্না ঘরের চুলি¬ থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় কাউন্সিলর নাজিম উদ্দিন বলেন, দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে দেখে এলাকার লোকজন ছুটে এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালান। ততক্ষণে গ্রামের মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, মুহাম্মদ হোসেন, মুহাম্মদ ইদ্রিস এবং মুহাম্মদ ইসলামের বেড়ার ঘরগুলো পুড়ে ছাই হয়ে যায়। খবর পেয়ে দমকল বাহিনীর সদস্যরা অকূস্থলে গিয়ে কিছু মালামাল উদ্ধার করার চেষ্টা চালান।

সরেজমিনে রেখা যায়, আগুন লাগার মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়াতে সামান্য পরিমান মালামালও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। পরিবারের সদস্যরা খুবই অসহায় হয়ে অঝর ধারায় কাঁদছেন। কথা হয় দুর্গত পরিবারের বৃদ্ধা মরিয়াম বেগম (৬৬) এর সাথে। তিনি বলেন ,আমার স্বামী ছিলেন চৌকিদার (গ্রাম পুলিশ)। বাবাহারা পাঁচ মেয়েকে নিয়ে দু:খের সংসার। সম্ভল বলতে একমাত্র ঘরটিই ছিল। সেটিও পুড়ে ছাই হয়ে গেল। এখন আমি কোথায় টাই নেব?

ফটিকছড়ি পৌর মেয়র ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগত তহবিল থেকে দুর্গত প্রতি পরিবারকে এক হাজার টাকা ও দু‘টি করে কম্বল প্রদান করেছি। এছাড়া তাদের ঘর তৈরীর সময় সরকারীভাবে সহযোগীতা প্রদানের চেষ্টা করব।

মেয়র আরো বলেন, ‘ফটিকছড়ি ক্লাব লিমিটেড অসহায় প্রতি পরিবারকে ২ হাজার পাঁচশ টাকা করে প্রদান করেছে। সমাজের বিত্তবানরা তাদের পাশে এগিয়ে আসলে তাদের দু:খ কিছুটা হলেও লাঘব হবে।’

মতামত