টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

হালদা থেকে লোকালয়ে এসে আটকা পড়লো গুই সাপ

মীর মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি প্রতিনিধি

fatickchari(goi-sap)-1চট্টগ্রাম, ১৫ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  নাজিরহাট নতুন ব্রীজ এলাকায় লোকালয়ে এসে আটকা পড়লো বিরল প্রজাতির এক গুই সাপ। যেটির ওজন প্রায় পনের থেকে বিশ কেজি। আজ (শুক্রবার) সকালে হালদা থেকে উঠে নাজিরহাট নতুন ব্রীজ সংলগ্ন ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের পূর্ব মন্দাকিনি এলাকায় লোকালয়ে আসলে সাপটিকে কিছু যুবক আটক করে রাখে। বর্তমানে এটি ওই গ্রামের দুস মুহাম্মদ চৌধুরী বাড়ির সাহাব উদ্দিন রানার ঘরে আটক অবস্থায় রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, কয়েকদিন যাবৎ সাপটিকে হালদার কূল ঘেসে ভাসতে দেখা গিয়েছিল। লোকালয়ে আসলে রানা, ওসমানসহ কয়েকজন যুবক মিলে তাকে আটক করে রাখে।

সরেজমিনে দেখা যায়, প্রায় ৩ ফুট দৈর্ঘ্যরে এ সাপটিকে দঁড়ি দিয়ে বেধে রাখা হয়েছে। এটিকে অনেকটা দুর্বল অবস্থায় দেখা যাচ্ছে।

fatickchari(goi-sap)-2চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণী বিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মনজুরুল কিবরিয়া বলেন, ‘গুই সাপকে শত্র“ বলে গণ্য করে এদের প্রাণে মেরে ফেলার প্রবণতা বেশি গ্রামীণ জনপদে। কিন্তু গুই সাপ কখনও মানুষের ক্ষতিসাধন করে না। উপরন্তু পরিবেশ রক্ষায় অনন্য ভূমিকা রাখছে এই প্রাণীটি। এটি মূলত জলাশয়ে বসবাস করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করে থাকে। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী তার চামড়া বিক্রি করার জন্য এটিকে ধরে নিয়ে যায়। ’

অধ্যাপক মনজুরুল কিবরিয়া আরো বলেন, ‘সাপটিকে আটক করে রাখা আইনগত অপরাধ। এটিকে তার বসবাস উপযোগী স্থানে অবমুক্ত করে দিতে হবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট বন বিভাগ কিংবা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ভূমিকা রাখতে পারেন।’

প্রাণী গবেষকদের মতে, পরিবেশের একটি মাংশাসী প্রাণী হিসেবে প্রকৃতির খাদ্য শৃঙ্খলে অনন্য ভূমিকা রাখছে গুই সাপ। এ ছাড়া বিভিন্ন পঁচা আবর্জনা, মৃত প্রাণী ভক্ষণ করে এটি পরিবেশ দূষণের হাত থেকে প্রকৃতিকে রক্ষা করে।’

বন বিভাগের নাজিরহাট রেঞ্জ এর রেইঞ্জার মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘সাপটিকে আটকের বিষয়টি আমরা জানতাম না। খবর নিয়ে এটিকে অবমুক্ত করার ব্যবস্থা করা হবে।’

মতামত