টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

পায়ুপথ ও পেটের ভিতর ইয়াবা পাচার, নিহত ২!

আমান উল্লাহ আমান
টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ১০ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) : সর্বনাশা ইয়াবার থাবায় দুই যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। ইতিমধ্যে খবরটি টেকনাফে ছড়িয়ে পড়লে সর্বসাধারনের মধ্যে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি চিহ্নীত ও সমাজে ছড়িয়ে থাকা ইয়াবা গডফাদারদের আটকের দাবী জোরালোভাবে উঠেছে। বেশী টাকার লোভে বিশেষ কৌশলে পায়ু পথ ও মুখ দিয়ে পেটের ভিতর করে ইয়াবার চালান বহন করতে গিয়েই গত তিন দিনে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়- গত ৫ জানুয়ারী টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের পশ্চিম মহেশখালীয়া পাড়ার গবী সুলতান ওরফে লুলা মিয়ার ছেলে মোস্তাক আহমদ (২৮) পায়ুপথে ইয়াবা বহন করে চট্টগ্রামে পৌঁছে। সেখানে অবস্থানরত জনৈক নুরুর বাসায় পৌঁছলে তিনি অসুস্থতাবোধ করে। পরে তাকে ৬ জানুয়ারী সকালে তাকে চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে নেয়া হলে সে সেখানে মৃত্যু বরণ করেন। ।

অপরদিকে গত ৯ জানুয়ারী টেকনাফ সদর ইউনিয়নের কঁচুবনিয়ার গুরা মিয়ার পুত্র মোঃ ইসমাইল (৩০) পাচারের জন্য ইয়াবা বিশেষ কৌশলে পেটে ও পায়ুপথে নেওয়ার সময় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে দ্রæত টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এলাকার গুটি কয়েক ইয়াবা ব্যবসায়ী তাদের ব্যবসা স¤প্রসারণের লক্ষ্যে গরীব লোকদের বেশী টাকার প্রলোভন ফেলে ইয়াবা বহনে বাধ্য করে। তাছাড়া কোন ধরনের অঘটন কিংবা দূর্ঘটনা ঘটে থাকলে তা মোটা অংকের বিনিময়ে প্রশাসনের অগোচরেই সমাধান করে থাকে।

এদিকে মরণ নেশা ইয়াবার থাবায় আইনশৃংখলা বাহিনীর কতিপয় সদস্য, শিক্ষার্থী, সাংবাদিক থেকে শুরু করে কেউ বাদ পড়ছেনা। কেউ না কেউ ইয়াবা সংশ্লিষ্টতায় জড়িয়ে পড়েছে। এতে ধ্বংসের পথে চলে যাচ্ছে যুব সমাজ। বিশেষ করে উঠতি তরুন-তরুনীরা ইয়াবা আসক্ত হয়ে পড়েছে। ফলে সমাজে নিত্য নতুন অঘটন ঘঠতে চলেছে। আইনশৃংখলা বাহিনী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে আসলেও বার বার রাঘব বোয়ালরা রয়ে যাচ্ছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এমন অভিযোগ সচেতনমহলের। টেকনাফ-কক্সবাজারের সড়কপথে বিভিন্ন আইনশৃংখলা বাহিনী কড়াকড়ি শুরু করায় সাগরপথেও পাচার হচ্ছে ইয়াবা। যা বিগত কয়েকদিনে সাগরে অভিযান চালিয়ে প্রচুর পরিমাণ ইয়াবাসহ অনেকে ধরা পড়েছে।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি আতাউর রহমান খোন্দকার জানান, ইয়াবাসহ যে কোন মাদক বিষয়ে কোন প্রচার ছাড় দেয়া হবেনা। যে যতই বড় রাঘব বোয়াল হোকনা কেন খুঁজে খুঁজে সকলকে আইন আওতায় আনা হবে। তিনি এ বিষয়ে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত