টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কাল থেকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের লাগাতার ধর্মঘট

চট্টগ্রাম, ১০ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  অষ্টম জাতীয় বেতন-কাঠামোতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দাবিসমূহের প্রতিফলন না হওয়ায় আগামীকাল সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সর্বাত্মক ধর্মঘটে যাচ্ছেন দেশের ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

রবিবার বিকেলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকদের সংগঠন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন।‌ দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলেও ঘোষণা দেওয়া হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

কর্মবিরতি চলাকালে সান্ধ্যকালীন কোর্সসহ সব ধরনের নিয়মিত ক্লাস বন্ধ থাকবে। তবে সেমিস্টার ফাইনাল বা কোর্স ফাইনাল পরীক্ষা গ্রহণের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি।

ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও মহাসচিব অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালের সই করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শিক্ষকদের দাবির বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ ও অসঙ্গতি দূর করার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে কোনো ধরনের পদক্ষেপ না নেওয়ায় আমরা কর্মবিরতিতে যাচ্ছি।

তবে শিক্ষার্থীদের অনুরোধ ও তাদের শিক্ষাজীবন রক্ষার বিষয়টি বিবেচনা করে কর্মসূচি চলাকালে শুধু সেমিস্টার ফাইনাল ও কোর্স ফাইনাল পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে শিক্ষকদের মর্যাদা ‘অবনমনের’ প্রতিবাদ ও স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো বাস্তবায়ন এবং সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেল বহাল রাখাসহ চার দফা দাবিতে গত আট মাস ধরে আন্দোলন করে আসছেন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। শুরুতে মানববন্ধন, অবস্থান কর্মসূচি, বক্তব্য-বিবৃতি ও নির্দিষ্ট সময় ধরে কর্মবিরতি পালন করেন তারা। সরকারের কোনো মহল তাদের সঙ্গে আলোচনা না করায় ২০১৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করেন দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

এরপর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে শিক্ষক প্রতিনিধিরা দেখা করলে মন্ত্রীরা তাদের দাবির ব্যাপারটি পর্যালোচনার আশ্বাস দেন। এরপর সরকারের পক্ষ থেকে অর্থমন্ত্রীকে প্রধান করে বেতন বৈষম্য নিরসন কমিটি গঠিত হয়।

গত ১৫ ডিসেম্বর পে-স্কেলের চূড়ান্ত গেজেট প্রকাশের পর তাতে শিক্ষকদের চার দফা দাবির কোনো প্রতিফলন ঘটেনি বলে অভিযোগ করে সংবাদ মাধ্যমে বিবৃতি পাঠায় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন।

তাদের অভিযোগ, গত ৬ ডিসেম্বরের বৈঠকে অর্থমন্ত্রী শিক্ষকদের তিনটি দাবি মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও গেজেটে তার কোনো প্রতিফলন ঘটেনি।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২ জানুয়ারি ঢাবি’র সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের মোজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিদের নিয়ে টানা তিন ঘণ্টা বৈঠক করে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন। বৈঠকে ১১ জানুয়ারি থেকে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগাতার কর্মবিরতি পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

মতামত