টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

গণতন্ত্র থাকলেই উন্নয়ন, বাংলাদেশ তার প্রমাণ: প্রধানমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ০৭ জানুয়ারি (সিটিজি টাইমস) :  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা থাকলে একটি দেশ যে উন্নত হতে পারে, বাংলাদেশ তা প্রমাণ করেছে।

তিনি শুক্রবার গোপালগঞ্জ টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার জিয়ারত শেষে এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জ্বালাও-পোড়াও করেছে বলেই পৌর নির্বাচনে বাংলার মানুষ বিএনপিকে ভোট দেয়নি।’

খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘মানুষ পুড়িয়ে তিনি (খালেদা জিয়া) সরকার উৎখাত করবেন বলে চেয়েছিলেন। কিন্তু পারলেন না। পরে ঠিকই ব্যর্থতার গ্লানি নিয়ে কোর্টে হাজিরা দিতে গেলেন।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী সরকার ‘উৎখাতে’র নামে মানুষ পুড়িয়ে হত্যার দায়ে খালেদা জিয়া বিচার হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন, ‘গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত থাকলে যে দেশের উন্নতি হয়, তার প্রমাণ আমরা রেখেছি। গণতন্ত্র থাকলে দেশে উন্নয়ন হয়। গণতন্ত্র না থাকলে উন্নয়ন হয় না।’

টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ ও মাল্টি মিডিয়া প্রজেক্টর বিতরণ করেন শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা বক্তব্য রাখেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টুঙ্গীপাড়ায় শেখ রাসেল শিশু পার্ক উদ্বোধন করেন। এর আগে তিনি শেখ রেহানাকে সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধের মসজিদে বাবা ও মায়ের আত্মার মাগফেরাত কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে অংশ নিয়ে বিকেল তিনটায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন- তার ছোট বোন শেখ রেহানা, শেখ হাসিনার চাচা শেখ কবির হোসেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক লে. কর্নেল (অব.) মুহা. ফারুক খান এমপি, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ সালাহ উদ্দিন জুয়েল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাববু আলী খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আব্দুল হালিম, সাধারণ সম্পাদক শেখ আবুল বশার খায়ের, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মিটু, উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী লেকু, টুঙ্গীপাড়া পৌরসভার মেয়র মো. ইলিয়াস হোসেন, নবনির্বাচিত মেয়র শেখ আহম্মেদ হোসেন মীর্জা প্রমুখ।

মতামত